বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন (বিএম) কলেজে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এর কর্মকর্তারা হানা দিয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে দুদক অভিযোগের ভিত্তিতে কলেজের প্রশাসনিক শাখায় গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন অধ্যক্ষ অধ্যাপক শফিকুর রহমান শিকদার।

তিনি জানান, ভর্তির সময় সেমিনার ফি রাখা হয়ে থাকে। বিগত সময়গুলোতে প্রতিবছরের সেমিনার ফি প্রতিবছর রাখার কারণে ফরম ফিলআপের সময় গিয়ে শিক্ষার্থীদের কষ্ট হয়। তাই এবার শুরুতেই চার বছরের সেমিনার ফি একত্রে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে। যা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষকেও অবহিত করা হয়েছে। তবে কেউ বাড়তি টাকা রাখার বিষয়ে দুদকে অভিযোগ দিয়েছেন। যে অভিযোগের প্রেক্ষিতে তারা বিষয়ে খতিয়ে দেখতে কলেজে আসেন। আমরা তাদের একত্রে সেমিনার ফি রাখার বিষয়টি সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য উপস্থাপন করেছি।

বিএম কলেজের অধ্যক্ষ বলেন, সরকারি এই কলেজে কারো কাছ থেকে বিধি বহির্ভূতভাবে বাড়তি টাকা রাখার কোনো সুযোগ নেই। অপরদিকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানান, বিগত সময়ে অনুষদ অনুযায়ী সেশন ফি প্রতিবছরেরটা প্রতিবছর রাখা হলেও এবারই প্রথম একবারে ৪ বছরেরটা রাখা হচ্ছে। এতে অনুষদ অনুযায়ী কারো ২ হাজার বা কারো আরো বেশি টাকা একত্রে দিতে হবে।

দুদক বরিশাল আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ পরিচালক দেবব্রত মন্ডল জানান, আমাদের একটি টিম বিএম কলেজে গিয়েছে। তবে বিস্তারিত কিছু জানাতে অপরাগতা প্রকাশ করেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here