জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব ও জাতীয় সংসদের সাবেক হুইপ আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার বলেছেন, ‘সরকার মসনদের জন্য দেশকে বিকিয়ে দিয়ে ক্ষমতায় থাকতে চায়। ভারতের সাথে দেশ বিরোধি চুক্তির কথা বলতে গিয়ে বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেছে ছাত্রলীগ। গনতন্ত্রতে পদদলিত করে এই সরকার চলছে। যারা আবরারকে হত্যা করেছে সেই ছাত্রলীগের রাজনীতি শুধু বুয়েটে নয় বরং সারা বাংলাদেশ থেকে ছাত্রলীগকে ব্যান্ড করে দেওয়া উচিত।

রোববার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে বরিশাল নগরীর সদর রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে দেশ বিরোধী চুক্তি বাতিল, তরুন ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ ও বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বরিশাল জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত জনসমাবেশে সভাপতির বক্তৃতায় মজিবর রহমান সরোয়ার এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমানে আমরা একটি কারাগারে বসবাস করছি। যেখানে খাই দাই, আর ঘুমাই। এখানে কথা বলারও কোন স্থান নেই। নেই প্রতিবাদের যায়গা। প্রতিবাদ করেছে বলেই আজ মেধাবী ছাত্র আবার খুন হয়েছে। স্বাধীনতা সার্বভৌমত্যের জন্য আবরার শহীদ হয়েছে। আজ যদি দেশে বৈধ সরকার থাকতো, নির্বাচনে সকল দলের অংশগ্রহন থাকত তাহলে আবার হত্যাকান্ড ঘটত না। সরকারের নিজ দলের নেতা-কর্মীদের প্রতি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেলেছে।

তিনি আরো বলেন, ‘সরকার দেশের জনগণের সাথে বেঈমানী করে ভারতের সাথে চার চুক্তি করেছে। জনগণের কোন সাথে আলোচনা না করেই তারা গ্যাস আমদানী করে তার ভারতের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। এটা দেশের জনগনের সাথে প্রতারনা। এই সরকার ২৯ ডিসেম্বর জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে সরকার গঠন করেছে। তারা রাতের আঁধারে ভোট চুনির করে মসনদ দখল করেছে। বরিশালের জনসভায় আমন্ত্রিত প্রধান অতিথি মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ সাবেক পানি মন্ত্রী ছিলেন। তিনি এই বিষয়ে সাধারন জনগণকে বিস্তারিত বুঝাতে পারতেন। কিন্তু সরকার তাকে সেই সুযোগ দেয়নি। কোন প্রকার মামলা ছাড়াই বিমান বন্দর থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। এদেশের গনতন্ত্রকে হরন করে সরকার নিজের ইচ্ছামত রাষ্ট্র পরিচালনা করছে। কেউ কথা বলতে পারছেনা।

জনসমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- কেন্দ্রীয় বিএনপি’র বরিশাল বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট বিলকিছ আক্তার জাহান শিরিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপি সাধারন সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাহাবুবুল হক নান্নু, বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপি’র সভাপতি মেজবা উদ্দিন ফরহাদ, দক্ষিণ জেলার সভাপতি এবায়েদুল হক চাঁন, সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কালাম শাহিন, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবুল হোসেন খান, মহানগর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক জিয়া উদ্দিন সিকদার প্রমুখ।

জনসভায় বক্তারা বলেন, ‘আবরার হত্যা ও দেশ বিরোধী চুক্তি একই সূত্রে গাথা। আজ সেই আবরারের পরিবারকে তাঁরা জামায়াত শিবির বলছে। ছাত্রলীগের এমন ন্যক্কার জনক ঘটনা দেশের প্রত্যেকটি মানুষকে কাঁদিয়েছে। শুধু বাংলাদেশই নয় বিশ্বের অনেক দেশ থেকে এর প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

বক্তারা আরো বলেণ, সরকার এখন রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রন করছে বলেই দেশের কোনস্তরে জবাব দিহীতা নেই। এই সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা মুলক মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে। যেখানে খুন, ডাকাতি মামলায় জামিন হচ্ছে সেখানে খারেদা জিয়া কোন দূর্নীতি না করে জেলে বন্দি হয়ে আছেন। তারা বলেন, সরকারে পতন ঘটনাতে হলে যেমন ভাবে এরশাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন হয়েছিলো ঠিক সেই ভাবে এই স্বৈরাচারী সরকারের পতন ঘটাতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here