নগরপিতা হিসেবে আতিকুল ইসলামের ওপরই ফের ভরসা রেখেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) জনগণ। ‘সবাই মিলে সবার ঢাকা; সুস্থ, সচল আধুনিক ঢাকা’ গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচনী মাঠে নামা বিশিষ্ট এ ব্যবসায়ী তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন।

ডিএনসিসি নির্বাচনে মোট এক হাজার ৩১৮টি কেন্দ্রের সবকটির ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী নৌকা প্রতীকের আতিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৪ লাখ ৪৭ হাজার ২১১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী তাবিথ আউয়াল পেয়েছেন ২ লাখ ৬৪ হাজার ১৬১ ভোট। রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম বেসরকারিভাবে আতিকুল ইসলামকে বিজয়ী ঘোষণা করেন।

শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টায় ভোটগ্রহণ শেষ হলে শেরেবাংলা নগরের কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে ডিএনসিসির ফলাফল ঘোষণা শুরু হয়।

এর আগে শনিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। ইভিএম জটিলতাসহ বিভিন্ন অভিযোগের মধ্য দিয়ে ভোট চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ভোট শেষে উত্তরের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে একে একে ভোটের ফলাফল ও সরঞ্জামাদি নিয়ে এখানে আসতে থাকেন বিভিন্ন কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসাররা।

ভোটগ্রহণ শুরু হলে উত্তরার নওয়াব হাবিবুল্লাহ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে সকাল সোয়া ৮টার দিকে ভোট দেন আতিকুল। তার আগে ৮টায় গুলশানের মানারাত ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট দেন তাবিথ আউয়াল।

ডিএনসিসিতে মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৫ লাখ ৪৯ হাজার ৫৬৭ এবং নারী ১৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০৬ জন। এই সিটিতে মোট ভোটকেন্দ্র এক হাজার ৩১৮টি। সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪টি এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি।

আতিকুল-তাবিথ ছাড়াও এই সিটিতে মেয়র পদে নির্বাচন করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি সমর্থিত প্রার্থী আহাম্মদ সাজেদুল হক রুবেল, ইসলামী আন্দোলনের শেখ ফজলে বারী মাসউদ, এনপিপির আনিসুর রহমান দেওয়ান ও পিডিপির শাহীন খান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here