অনলাইন ডেস্ক : বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথের নাম ব্যবহার করে ফেসবুক ও ইউটিউবে অশ্লীল ভিডিও ছড়ানোর অভিযোগের মামলায় দুই আসামি আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

তিন দিনের রিমান্ড চলাকালে মঙ্গলবার আসামিরা স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হওয়ায় তাদের আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সাইবার সিকিউরিটি বিভাগের ডিজিটাল ফরেনসিক টিমের এসআই মো. সাইদুর রহমান। তিনি আসামিদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম কনক বড়ুয়া আসামিদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। এরপর তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

আসামিরা হলেন- জয়পুরহাটের দক্ষিণ পাড়ার আব্দুস জব্বার প্রামানিকের ছেলে আমান হাসান শিপন (২৩) এবং একই জেলার ভাদশাহ ইউনিয়নের সাইফুল ইসলামের ছেলে মেসবাহুল ইসলাম মেজবাহ (২৭)।

এর আগে রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ওই দুই আসামির গত ১৪ সেপ্টেম্বর তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

পংকজ দেবনাথের অনলাইন অ‌্যাডমিন আলফারেজ ইসলাম ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গত ১১ সেপ্টেম্বর ধানমন্ডি থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরের দিন জয়পুরহাটে অভিযান চালিয়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথকে রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য ছদ্মবেশ ধারণ করে অশ্লীল ভিডিওর শিরোনামে তার নাম ও ছবি সংযুক্ত করে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। বিষয়টি রাজনৈতিক মহল ও তার আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে জানাজানি হয়।

এতে বর্তমানে তিনি ও তার পরিবারের সদস‌্যরা অতিষ্ঠ এবং হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। তাকে সামাজিকভাবে হেয় ও অপমাণিত করার ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রে এহেন জঘন্য অপরাধটি সংঘটিত করা হয়েছে। ফেসবুক ও ইউটিউবে ব্যাপকভাবে প্রচার করে তার ভাবমূর্তি ও শান্তি ক্ষুণ্ন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here