বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক বনী আমীনের বিরুদ্ধে বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেনীর এক ছাত্রীকে অপহরন ও ধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। এঘটনায় তাকে বহিস্কার করেছে জেলা ছাত্রলীগ। বনী আমিন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইস্যু ক্লার্ক হিসেবে কর্মরত। এদিকে অপহরনের ঘটনায় যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

 

বরিশাল বিমান বন্দর থানার ওসি জানান, সোমবার রাতে বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেনীর এক ছাত্রীর মা বাদী হয়ে থানায় একটি অপহরন মামলা করেন জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক বনী আমীনের বিরুদ্ধে।

মামলায় উল্লেখ করা হয় নগরীর নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে একটি প্রাইভেট গাড়ীতে করে ওই ছাত্রীকে অপহরন করা হয়। সেখান থেকে কুয়াকাটর একটি হোটেলে নিয়ে ধর্ষন করা হয় তাকে।

 

পরে মঙ্গলবার ভোর রাতে ঝালকাঠি শহরের একটি বাসা থেকে তরুনীকে উদ্ধার করে পুলিশ। তবে বনী আমীন পুলিশের উপস্থিতি পেয়ে পালিয়ে যাওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা যায়নি। পুলিশ আরো জানায়, আজ বুধবার শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই ছাত্রীর ডাক্তারী পরীক্ষা করানো হবে।

এদিকে এঘটনায় ছাত্রলীগ থেকে বনী আমীনকে বহিস্কার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক।

 

তিনি আরো জানান, বনী আমীন কোন অপরাধ করলে উপযুক্ত শাস্তি তাকে পেতে হবে। বনী আমীন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর একজন কর্মচারী এবং তৃতীয় শ্রেনীর কর্মচারী কল্যান পরিষদের সভাপতি। তার স্ত্রী ও দুই সন্তান রয়েছে। তার বাড়ি বরিশাল নগরীর গনপাড়া এলাকায়। নির্যাতিতার বাড়ি বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলায়। নির্যাতিতা তার পূর্ব পরিচিত ছিল। সেই সূত্র ধরে তার সাথে সোমবার তাকে অপহরন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here