শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, এবারের কোরবানির চামড়া নিয়ে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা বা অব্যবস্থাপনা তৈরি হয়নি। লবণ দিয়ে যথাসময়ে এবং যথাযথ প্রক্রিয়ায় চামড়া সংরক্ষণ করা হয়েছে। চামড়া সংরক্ষণের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণের সরবরাহ ছিল এবং কোনো চামড়া নষ্ট হয়নি।

তিনি বলেন, জেলা, বিভাগ ও মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে মাঠপর্যায়ে মনিটরিং ও টিমওয়ার্কের কারণে চামড়া সংগ্রহ, পরিবহন ও সংরক্ষণে চামড়া ব্যবস্থাপনায় এবার সুফল এসেছে। এ বছর প্রচার ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম ব্যাপকভাবে চালানো হয়েছে, যার ফলে আমরা কোরবানির চামড়া ব্যবস্থাপনায় সুফল পেয়েছি।

রোববার (২৫ জুলাই) শিল্প মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন সংস্থাসমূহের কর্মকর্তাদের সঙ্গে পবিত্র ঈদুল আজহা পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভার্চুয়ালি এসব কথা বলেন তিনি।

শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার। এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- রাষ্ট্রায়ত্ত করপোরেশনের অতিরিক্ত সচিব শিবনাথ রায়, বিসিআইসি চেয়ারম্যান শাহ মো. ইমদাদুল হক, বিসিক চেয়ারম্যান মো. মোশতাক হাসান এনডিসি। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন অতিরিক্ত সচিব (পরিকল্পনা) মো. গোলাম ইয়াহিয়া। অনুষ্ঠানে মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন দফতর/সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারির মধ্যেও শিল্প মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। শিল্পখাত সংশ্লিষ্ট সবাইকে স্বাস্থ্য-সুরক্ষা ব্যবস্থা প্রতিপালন করে সুস্থ থাকতে হবে এবং সচেতন হতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, কোরবানির চামড়া কীভাবে সংরক্ষণ ও স্থানান্তর করতে হবে এ বিষয়ে শিল্প মন্ত্রণালয় যথাযথ কার্যক্রম নেয়ার কারণে এ বছর চামড়া নিয়ে আমরা কোনো অভিযোগ পাইনি। এবার চামড়া সংরক্ষণ, স্থানান্তর ও সার্বিক ব্যবস্থাপনায় শিল্প মন্ত্রণালয় সফল হয়েছে এবং ব্যবসায়ীরা চামড়ার সঠিক দাম পেয়েছে। কোরবানির চামড়া কীভাবে সংরক্ষণ ও স্থানান্তর করতে হবে এবং তার সঠিক নির্দেশনা শিল্প মন্ত্রণালয় যথাসময়ে দিয়েছে, বিভিন্ন গণমাধ্যমে জনস্বার্থে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালিয়ে জনগণকে সচেতন করেছে। ফলে কোরবানির চামড়া সংরক্ষণে আমরা সুফল পেয়েছি। এজন্য এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান শিল্প প্রতিমন্ত্রী।

সভাপতির বক্তব্যে শিল্পসচিব বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয়, বিসিক ও মাঠপর্যায়ের প্রশাসনের সহায়তায় এবং কর্মকর্তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিক সহযোগিতায় এবারের কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণ প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পূর্ণ হয়েছে। শিল্পসচিব এই সার্বিক প্রক্রিয়ার সঙ্গে সম্পর্কিত সকলকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি আরও বলেন, আমি আশা করি, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ভবিষ্যতে আরও ব্যাপকভাবে এই দায়িত্ব পালন করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here