ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গুলিতে পা হারানো কলেজছাত্র লিমন হোসেনের বাবা তোফাজ্জেল হোসেন আকনকে (৫৫) পিটিয়ে জখম করা হয়েছে।

প্রতিপক্ষের হামলার সময় তোফাজ্জেল হোসেনকে রক্ষা করতে গিয়ে তার পা হারানো ছেলে লিমন, সুমন ও তার স্ত্রী হেনোয়ারা বেগমও মারধরের শিকার হয়েছেন। গুরুতর আহত তোফাজ্জেল হোসেন আকনকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় রোববার দুপুরে লিমনের মা হেনোয়ারা বেগম রাজাপুর থানায় দুইজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা ছয়জনের নামে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এটিকে মামলা হিসেবে নিয়ে এজাহারভুক্ত করেছে পুলিশ। এতে মোট ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলার পর সোমবার রাতে রাজাপুর থানা পুলিশ উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামে আসামিদের গ্রেফতার করতে গিয়ে কাউকে না পেয়ে ফিরে আসে।

এরই মধ্যে মামলার প্রধান আসামি ইব্রাহিম প্রকাশ্যে লিমনের পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিয়েছেন। সেই সঙ্গে মামলার অন্য আসামিরা লিমনের পরিবারের সদস্যদের চোখ উপড়ে ফেলার হুমকি দেয়। এ অবস্থায় লিমনের পরিবার আতঙ্কের মধ্যে আছেন। সেই সঙ্গে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন লিমনের পরিবার ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লিমন জানান, তার মা হেনোয়ারা বেগম ঝালকাঠিতে জরুরি কাজে ব্যস্ত ছিলেন। এ ঘটনায় মা থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে রাজাপুর থানা পুলিশের ওসি মো. জাহিদ হোসেন বলেন, ঘটনাটি লোকমুখে শুনেছি। কিন্তু কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। লিমনের বাবাকে মারপিটের ঘটনায় উভয়পক্ষ থেকে মামলা এজাহারভুক্ত করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত চলছে বলেও জানান ওসি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here