ঝালকাঠিতে বিদ্যুতের ভৌতিক বিলে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন গ্রাহকরা। বিল সংশোধনে অফিসে গিয়েও দফায় দফায় হয়রানির শিকার হচ্ছেন তারা। সংশোধন করতে অতিরিক্ত টাকা গুণতে হচ্ছে বলেও অভিযোগ গ্রাহকদের। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে ঝালকাঠি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির নির্বাহী প্রকৌশলীকে লিগ্যাল নোটিশ করেছেন এক প্রবীণ শিক্ষক।

হয়রানির শিকার সদর উপজেলার কৃষ্ণকাঠি টাইগার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. আলী হায়দার তালুকদারের পক্ষে মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) অ্যাডভোকেট ফারুক হোসেন খান এ লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেন।

এছাড়াও উক্ত হিসাব নম্বরে গত ২১ জুন তারিখে ১৯০৬২০৪১২১৪০৪ নম্বর বিল গ্রাহক বরাবরে ইস্যু করা হয়। ওই বিলেও বর্তমান মিটার রিডিং ১১০৮০ এবং পূর্ববর্তী রিডিং ১০৪৮০, যার ব্যবহৃত রিডিং ইউনিট লেখা হয়েছে ৭২০। কিন্তু ওই বিলের বর্তমান ও পূর্ববর্তী রিডিং এর প্রকৃত বিয়োগফল হবে ৬০০। অর্থাৎ ১২০ ইউনিট বেশি লেখা হয়েছে। সর্বমোট দুইটি বিলে ২৫০ ইউনিট বিল বেশি লেখা হয়েছে।

লিগ্যাল নোটিশে উল্লেখ করা হয়, প্রবীণ শিক্ষক আলী হায়দার তালুকদার ঝালকাঠি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির একজন গ্রাহক। চলতি বছরের ২৩ মে ১৯০৫২০৪১২১৪০৪ নম্বর বিল গ্রাহক বরাবরে ইস্যু করা হয়। ওই বিলে বর্তমান মিটার রিডিং ১০৪৮৯ এবং পূর্ববর্তী রিডিং ৯৮৪০, যার ব্যবহৃত রিডিং ইউনিট লেখা হয়েছে ৭৭০। কিন্তু ওই বিলের বর্তমান ও পূর্ববর্তী রিডিং এর প্রকৃত বিয়োগফল হবে ৬৪০। অর্থাৎ ১৩০ ইউনিট বেশি লেখা হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে গ্রাহক আলী হায়দার তালুকদার লিখিত অভিযোগ সহকারে বিদ্যুৎ অফিসে উপস্থিত হয়ে যোগাযোগ করলেও নির্বাহী প্রকৌশলীসহ অফিসের কম্পিউটার অপারেটর উক্ত অভিযোগ গ্রহণ না করে গ্রাহকের সঙ্গে উদাসীন ভাব প্রকাশ করে। নোটিশ প্রাপ্তির পর সাত দিনের মধ্যে উপযুক্ত জবাব প্রদানে ব্যর্থ হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়। সোমবার (২৯ জুলাই) এ নোটিশ প্রদান করেন।

অবগতির জন্য নোটিশের অনুলিপি পিডিবি চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপক, জেলা প্রশাসক, বরিশাল বিভাগীয় নির্বাহী প্রকৌশলী ও ঝালকাঠি প্রেসক্লাব সভাপতি বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন ডেস্ক :: ঝালকাঠিতে বিদ্যুতের ভৌতিক বিলে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন গ্রাহকরা। বিল সংশোধনে অফিসে গিয়েও দফায় দফায় হয়রানির শিকার হচ্ছেন তারা। সংশোধন করতে অতিরিক্ত টাকা গুণতে হচ্ছে বলেও অভিযোগ গ্রাহকদের। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে ঝালকাঠি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির নির্বাহী প্রকৌশলীকে লিগ্যাল নোটিশ করেছেন এক প্রবীণ শিক্ষক।

হয়রানির শিকার সদর উপজেলার কৃষ্ণকাঠি টাইগার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. আলী হায়দার তালুকদারের পক্ষে মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) অ্যাডভোকেট ফারুক হোসেন খান এ লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেন।

এছাড়াও উক্ত হিসাব নম্বরে গত ২১ জুন তারিখে ১৯০৬২০৪১২১৪০৪ নম্বর বিল গ্রাহক বরাবরে ইস্যু করা হয়। ওই বিলেও বর্তমান মিটার রিডিং ১১০৮০ এবং পূর্ববর্তী রিডিং ১০৪৮০, যার ব্যবহৃত রিডিং ইউনিট লেখা হয়েছে ৭২০। কিন্তু ওই বিলের বর্তমান ও পূর্ববর্তী রিডিং এর প্রকৃত বিয়োগফল হবে ৬০০। অর্থাৎ ১২০ ইউনিট বেশি লেখা হয়েছে। সর্বমোট দুইটি বিলে ২৫০ ইউনিট বিল বেশি লেখা হয়েছে।

লিগ্যাল নোটিশে উল্লেখ করা হয়, প্রবীণ শিক্ষক আলী হায়দার তালুকদার ঝালকাঠি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির একজন গ্রাহক। চলতি বছরের ২৩ মে ১৯০৫২০৪১২১৪০৪ নম্বর বিল গ্রাহক বরাবরে ইস্যু করা হয়। ওই বিলে বর্তমান মিটার রিডিং ১০৪৮৯ এবং পূর্ববর্তী রিডিং ৯৮৪০, যার ব্যবহৃত রিডিং ইউনিট লেখা হয়েছে ৭৭০। কিন্তু ওই বিলের বর্তমান ও পূর্ববর্তী রিডিং এর প্রকৃত বিয়োগফল হবে ৬৪০। অর্থাৎ ১৩০ ইউনিট বেশি লেখা হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে গ্রাহক আলী হায়দার তালুকদার লিখিত অভিযোগ সহকারে বিদ্যুৎ অফিসে উপস্থিত হয়ে যোগাযোগ করলেও নির্বাহী প্রকৌশলীসহ অফিসের কম্পিউটার অপারেটর উক্ত অভিযোগ গ্রহণ না করে গ্রাহকের সঙ্গে উদাসীন ভাব প্রকাশ করে। নোটিশ প্রাপ্তির পর সাত দিনের মধ্যে উপযুক্ত জবাব প্রদানে ব্যর্থ হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়। সোমবার (২৯ জুলাই) এ নোটিশ প্রদান করেন।

অবগতির জন্য নোটিশের অনুলিপি পিডিবি চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপক, জেলা প্রশাসক, বরিশাল বিভাগীয় নির্বাহী প্রকৌশলী ও ঝালকাঠি প্রেসক্লাব সভাপতি বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here