অনলাইন ডেস্ক: আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২৬ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষণা করা হবে। এর আগে ২০১৭ সালের নভেম্বরে আনিসুল হকের মৃত্যুতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদ শূন্য হয়। ওই পদে উপ-নির্বাচনের পাশাপাশি ঢাকার দুই সিটির নতুন ৩৬টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করার জন্য গত বছর তফসিলও ঘোষণা করেছিল ইসি। কিন্তু সীমানা জটিলতার কারণে উচ্চ আদালত নির্বাচন স্থগিত করে।

সে সময় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া ক্ষেত্রে এগিয়ে ছিলেন ব্যবসায়ী নেতা আতিকুল ইসলাম। এমনকি তিনিই ডিএনসিসি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হচ্ছেন এটা ছিলো নিশ্চিত।

তবে এখন কী আগের সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে, না নতুন কেউ আসছেন? এ নিয়ে সব মহলে আলোচনা চলছে।

আওয়ামী লীগ নেতারা অবশ্য পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়ে বিষয়টি শেখ হাসিনার ওপর ছেড়ে দিয়েছেন। কেউ কেউ আবার চুপিসারে বলছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানকের নাম।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত এবং এর আগে ক্যাবিনেট থেকে বাদ পড়া নানক গেল নির্বাচনে সমন্বয় ও মনিটরিংয়ের দায়িত্ব পালন করেছেন। বিদ্রোহীদের বসানো, দলের বিভেদ মেটানোসহ নির্বাচনে দলের পক্ষে সেতুবন্ধনের কাজটি করেছেন। নানা আন্দোলন-সংগ্রামে শেখ হাসিনার পরীক্ষিত, বিশ্বস্ত ও কর্মীবান্ধব নাম জাহাঙ্গীর কবির নানক।

তাছাড়া জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত নানকের জন্য বড় পুরস্কার অপেক্ষা করছে এরকমও শোনা গিয়েছিলো। তবে কী উত্তর সিটির চেয়ারটি তার জন্য বড় পুরস্কার হতে চলেছে কি না সেটি দেখতে হলে আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

এবিষয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন- নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আমি এই সিটির নেতাকর্মীসহ সব মানুষের কাছে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। সব মহলে নিজেকে তুলে ধরবার চেষ্টা করেছি। আশা করি, নেত্রী তার আগের সিদ্ধান্তই বহাল রাখবেন।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here