অনলাইন ডেস্ক : বরগুনায় রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত সাব্বির আহমেদ নয়ন ওরফে নয়ন বন্ডকে কারা আস্কারা দিয়ে ‘সন্ত্রাসী’ বানিয়েছে, সেটা খুঁজে বের করার কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

শুক্রবার (৫ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডির আবাহনী মাঠে ঢাকা ব্যাংক ফিবা অনুর্ধ্ব-১৬ এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে এই মামলার অগ্রগতি নিয়ে শুনানিতে নয়ন বন্ডের বেপরোয়া হয়ে উঠা নিয়ে কথা বলেন বিচারকরা। মন্তব্য আসে, ‘একদিনে এই নয়ন বন্ডরা তৈরি হয় না। কেউ না কেউ তাদের পৃষ্ঠপোষকতা করে থাকে। কেউ না কেউ লালন-পালন করে ক্রিমিনাল বানায়।’

কারা নয়ন বন্ডের মতো চরিত্র তৈরিতে সহায়তা করেছে- এমন প্রশ্নে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সেটিরও তদন্ত চলছে। আমরাও বের করতে চাই কারা তাকে এমন বানিয়েছিল।’

তিনি বলেন, আমরা কেউই বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড সমর্থন করি না। তবে নয়নের ক্ষেত্রে যেটি হয়েছে সেটি ছিল আত্মরক্ষার স্বার্থে। নয়ন বন্ড একদিনে তৈরি হয়নি। সে কীভাবে তৈরি হয়েছে সেটিও তদন্ত চলছে। আমরাও বের করতে চাই, কারা তাকে এমন বানিয়েছিল।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলনে, আমরা সব সময় আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দেশের মানুষও আইনের শাসনের প্রতিষ্ঠা দেখতে চায়, সরকার সে লক্ষে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। দুদকের কর্মকর্তা বাছিরের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। তদন্তের পর তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যেমনটি নেওয়া হয়েছিল ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে। ডিআইজিকেও তদন্তের পর আইনের আওতায় আনা হয়েছে।’

গত ২৬ জুন বরগুনায় রিফাতকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার পর প্রধান সন্দেহভাজন নয়ন বন্ডের অতীতের নানা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিষয়টি গণমাধ্যমে আসে। সন্ত্রাসের একাধিক মামলার আসামি নয়ন বিচার না হওয়ায় বেপরোয়া হয়েছে বলেই স্থানীয়রা বলেছেন গণমাধ্যমকে। তবে গত মঙ্গলবার পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তার অধ্যায়ের সমাপ্তি হয়। নিহত হন তিনি।

কথিত বন্দুকযুদ্ধে নয়ন নিহত হওয়ার পর স্থানীয় লোকজন স্বস্তি প্রকাশ করেছিল। যদিও তাদের বড় একটি অংশই হতাশা প্রকাশ করে বলেছে, নয়ন নিহত হওয়ার ফলে গডফাদাররা ধরাছোঁয়ার বাইরেই থেকে যাচ্ছে। আবার রিফাতের গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিয়েও মানুষকে হতাশা প্রকাশ করতে শোনা গেছে। তারা বলছে, নয়নের মতোই রিফাতের পরিণতি তারা আশা করছিল। কিন্তু তার আত্মীয় প্রভাবশালী হওয়ায় রিফাত এ যাত্রার বেঁচে গেছে। যারা রিফাতের নির্যাতনের শিকার হয়েছে, তারা আতঙ্কে রয়েছে। তবে পুলিশ প্রশাসন বলছে, রিফাত শরীফের খুনিদের বিষয়ে তারা কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here