পাসপোর্ট ছাড়াই বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পাইলট ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদের কাতারে যাওয়ার ঘটনায় ‘গাফিলতি’র কারণে ইমিগ্রেশন পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) কামরুজ্জামানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

শনিবার দুপুরে র‌্যাব সদরদপ্তরে সাংবাদিকের এ তথ্য জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, ‘বিমানবন্দরে দুই-তিন জায়গায় তল্লাশি করা হয়। এরপরও তিনি (ফজল মাহমুদ) চলে গেছেন। আমাদের ইমিগ্রেশনে তিনি ফিঙ্গার প্রিন্টও দিয়েছেন। পাসপোর্ট দেখতে চাইলে পকেটে আছে বলে সবসময়ই জানান পাইলটরা। তারপরও ইমিগ্রেশন পুলিশের গাফিলতি ছিল। গাফিলতির কারণে ইমিগ্রেশন পুলিশের এসআই কামরুজ্জামানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী বিদেশ সফরে থাকা অবস্থায় তাকে আনতে বুধবার রাতে ঢাকা থেকে বোয়িং ৭৮৭ মডেলের একটি ড্রিমলাইনার কাতারের দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যায়। বিমানটির পাইলট ছিলেন ক্যাপ্টেন মাহমুদ। তিনি পাসপোর্ট ছাড়াই কাতার যান। কাতার ইমিগ্রেশনে বিষয়টি ধরা পড়ে। সে সময় ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদ কাতার ইমিগ্রেশনকে জানান, তার পাসপোর্ট বিমানের ফ্লাইট অপারেশন রুমের লকারে। এরপর বিমানের নিরাপত্তা মহাব্যবস্থাপকের কাছ থেকে চাবি নিয়ে তার পাসপোর্ট উদ্ধার করেন বিমানের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ মহাব্যবস্থাপক (জিএম সেন্ট্রাল কন্ট্রোল) আশরাফ হোসেন। পরে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টায় রিজেন্ট এয়ারওয়েজের দোহাগামী ফ্লাইটে পাসপোর্টটি নিয়ে যাওয়া হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here