অনলাইন ডেস্ক: কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে টানা দ্বিতীয় দিনের মত পূর্ণ দিবস কলম বিরতী পালন করছেন পিরােজপুর জেলার ৭টি সাব রেজিস্ট্রী অফিস। কলম বিরতীর ফলে সরকারের রাজস্ব আয়ের বিরাট ঘাটতি সহ জনমনে পরছে চরম ভােগান্তি।

নকল নিতে আসা দেলােয়ার নামে এক ব্যাক্তির সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন, নকল নিতে এসে আজ দুই দিন রেজিস্ত্রী অফিসে ঘােরাঘুরি করিতেছি, নকল পাচ্ছিনা ফলে ব্যাংক থেকে লােন নিতে পারছিনা মহা সংকটে আছি।

আন্দোলনের বিষয় জানতে চাইলে, নাজিরপুর সাব রেজিস্ট্রী অফিসের নকল নবিশ মহিবুল্লাহ খান, সুনিল হালদার বলেন, আমরা সরকারী অফিসে চাকুরী করি সত্যি, কিন্তু দুঃখের বিষয় সরকারী সকল সুযােগ সুবিধা থেকে আমরা বঞ্চিত। জনগনের গুরুত্ব পূর্ন সম্পদ বালামে দলিল লিপিবদ্ধ করে, জনগনের সম্পদের স্থায়ী রেকর্ড সৃষ্টি করি কিন্তু আমরা স্কেল ভুক্ত হওয়া তাে দুরের কথা বর্তমান বাজারে ন্যায্য মজুবী থেকে ও বঞ্চিত।

তা ছারা আমরা প্রতি পৃষ্ঠা ৩০০ শত শব্দ বালামে লিখলে সরকার নির্ধারিত পাই ৪০ টাকা তা থেকে আমরা পাই ২৪ টাকা বাকি ১৬ টাকা আবার সরকার কেটে নেয়, আরাে বলেন যে ১৯৭৩ সালে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান নকল নবিশ দের চাকরী রাজস্ব খাতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আইন প্রনয়ন করলে ও আজ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন হয়নি।

অত্র অফিসের মহিলা নকল নবিশ সাহিনুর খানম কবিতা বড়াল সহ অন্যান্য দের সাথে আলাপ কালে বলেন যে বর্তমান। | মাননীয় প্রধান মন্ত্রী মহিলা তিনি মহিলাদের দুঃখ দুর্দর্ষর প্রতি আন্তরিক তার আমলে সারা দেশের সাব রেজিস্ট্রী অফিসে প্রায় ৮০০০ মহিলা নকল নবিশদের বিনা পারিশ্রমিকে মাতৃত্ব কালীন ছুটি ভােগ করতে হয়,তাছারা আমাদের বয়স ৬০ বছর
হবার সাথে সাথে কর্মমুক্ত করে দেওয়া হয়। ফলে এ বয়সে আমরা সরকার থেকে কোন প্রকার ভাতাদী না পাওয়ায় সন্তান। সন্ততি নিয়ে পরতে হয় চরম বিপাকে।

তাহারা আরাে বলেন যে মাননীয় আইন মন্ত্রী মহান সংসদে বসে নকল নবিশদের চাকরী রাজস্ব খাতে উন্নিত করার জন্য আস্বস্থ করেন, যার কোন বাস্তবায়ন আজ পর্যন্ত হয়নি। সর্বশেষ তারা বলেন যে সরকার যদি আমাদের ন্যায্য দাবী মেনে না  নেন তবে আমরা সারা বাংলাদেশের নকল নবিশরা অনিদৃষ্ট কালের কলম বিরতী সহ আমরন অনষনে যাব ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here