বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই নেতার সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘাতের খবর পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় উভয়পক্ষের অন্তত ৯ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। রোববার দুপুরে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এই সংঘাতের খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে নেয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়- আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গৌরনদী উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য সাগর সম্রাটের (২০) সঙ্গে সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য ও ছাত্র সংসদের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক আরিফ মিয়ার (২১) মধ্যে ২/৩ মাস যাবত বিরোধ চলে আসিছল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়- আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র এই দুই ছাত্রলীগ নেতার কর্মীরা রোববার দুপুরে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষের একপর্যায়ে উভয়গ্রুপ ধারালো অস্ত্র, লাঠিসোটা, হকিস্টিক, রড় ও পাইপ নিয়ে এক পাল্টাপাল্টি ধাওয়ায় উত্তেজনা ছড়িয়ে দেয়। পরবর্তীতে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে করে।

সংঘর্ষে আরিফ গ্রুপের সমর্থক সাব্বির হোসেন (১৯), রাজু (১৮), সজল (১৯), জাকারিয়া (২০) এবং সাগর গ্রুপের সমর্থক সরকারি গৌরনদী কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. মানিক হোসেনসহ তিনজন আহত হয়। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত মানিক হোসেনকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি/তদন্ত) মো. মাহাবুবুর রহমান মুঠোফোনে জানান- খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাঠিচার্জ করে উভয়গ্রুপকে সরিয়ে দেয়। এখন সেখানকার পরিবেশ পুরোপুরি শান্ত রয়েছে। এবং পরবর্তীতে যেকোন ধরনের অপ্রীতির ঘটনা রোধে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করাও হয়েছে।

তবে এই সংঘাতের ঘটনায় সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত থানায় কোন পক্ষ অভিযোগ না করলেও ছাত্রলীগের গ্রুপ দুটি একে অপরকে দোষারোপ করেছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here