অনলাইন ডেস্কঃ বরিশাল নগরীর ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের রুইয়া এলাকায় বিরোধপূর্ণ সম্পত্তিতে বসতঘর তোলাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে দু’পক্ষের অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। তাদের উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সংশ্লিষ্ট বরিশাল মেট্রোপলিটন বিমানবন্দর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। কিন্তু এই ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে- স্থানীয় মো. মাহাতাব উদ্দিন হাওলাদার ও মো. মানিক হাওলাদার মোট ১ একর ৬১ শতাংশ জমির মালিক। এবং জমি তাদের নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবত একই এলাকার মৃত আশরাফ আলী আকনের পুত্র জাকির আকন ওই জমিতে তার ভাগ রয়েছে বলে দাবি করেন। শুক্রবার সকালে জাকির হোসেন ২০ থেকে ২৫ জন লোক নিয়ে বিরোধীয় জমিতে ঘর তুলতে যান। কিন্তু বাড়িতে পুরুষ না থাকায় মহিলারা তাতে বাঁধা দিলে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। এতে রিনা বেগম (৬০), সামসুর নাহার (৫০), নুরুন্নাহার (৪৫) ও রেনু বেগম ( ৪০) আহত হন।

তবে এই হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে মো. জাকির আকন বলছেন- মানিক ১ একর ৬১ শতাংশের মালিক একথা সত্যি। কিন্তু তাদের ভোগ দখলে রয়েছে ১ একর ৭১ শতাংশ। যা আমিন দ্বারা পরিমাপের ট্রেস কাগজ রয়েছে। ওয়ারিশ সূত্রে বাকি ১০ শতাংশের মালিক তার মৃত পিতার পক্ষে জাকির আকন। স্থানীয় কাউন্সিলর নুরুল ইসলামসহ গণ্যমান্য শালিসদাররা গত ৬ ফেব্রুয়ারি ওই ১০ শতাংশ থেকে মাত্র ৩ শতাংশ জমি জাকির আকনকে দেওয়ার জন্য রায় দেয়। যেন একটি ঘর তুলে স্ত্রী- সন্তান নিয়ে থাকতে পারেন।

অথচ দীর্ঘ ১৬ দিন পাড় হলেও জমি বুঝিয়ে না দেওয়ায় আজ শুক্রবার জাকির ওই জমিতে ঘর তোলেন। এতে প্রতিপক্ষ ক্ষিপ্ত হয়ে হামলা চালায়। তাতে জাকিরের বোন মুকুল বেগম ( ৪৮) আহত হন। তাকেও শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ মামলার প্রস্তুতি নিয়েছে।

বরিশাল বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্র্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহমান মুকুল জানিয়েছেন- খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। কিন্তু সংঘর্ষের উভয়গ্রুপ পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

এই ঘটনায় অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান ওসি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here