শামীম আহমেদ ॥ দুই মেয়েকে হত্যার জন্য রাতের খাবারের সাথে বিষ মিশিয়ে রেখেছে তাদের সৎ মা। ওই খাবার খেয়ে দুই মেয়েই অসুস্থ্য হয়ে পরার পর মুর্মূর্ষ অবস্থায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিষয়টির রহস্য ফাঁস হয়ে যাওয়ায় সৎ মা নিজেও অসুস্থ্যতার ভ্যান করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

ঘটনাটি বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার কদমবাড়ি গ্রামের।

জানা গেছে, ওই গ্রামের বিমল ওঝা অসুস্থ হয়ে পরলে তার বিয়ে দেয়া কন্যা লক্ষ্মী রানী ও সাথী রানী বাবার সেবার জন্য সম্প্রতি স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে আসে। মেয়েদের বাড়িতে আসা মেনে নিতে পারেনি তাদের সৎ মা রুনা মন্ডল। এনিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে বাগ্বিতন্ডা লেগেই ছিলো।

সোমবার সকালে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি লক্ষ্মী রানী ও সাথী রানী অভিযোগ করেন, সৎ মা রুনা মন্ডল তাদেরকে হত্যার জন্য পূর্ব পরিকল্পিতভাবে রান্না করা তরকারিতে বিষ মিশিয়ে রাখে। রবিবার রাতে ওই তরকারি খেয়ে তারা দুই বোন অসুস্থ হয়ে পরে। পরবর্তীতে মুমূর্ষ অবস্থায় বাড়ির লোকজন তাদের দুইজনকেই উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

তারা আরও জানান, বিষয়টির রহস্য ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর নিজের অপকর্ম ঢাকতে রুনা মন্ডল নিজেও অসুস্থ্যতার ভ্যান করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে আগৈলঝাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আফজাল হোসেন জানান, বিমল ওঝার প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর পর তিনি রুনা মন্ডলকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। কিন্তু সৎ মা সংসারে আসার পর থেকেই বিমল ওঝার সংসারে অশান্তি লেগেই ছিল এবং মেয়েদের সাথেও রুনা মন্ডলের ভালো সম্পর্ক ছিলোনা।

তিনি আরও জানান, বিষের বিষয়টির তদন্ত চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here