চাকুরীজীবীদের ফাঁদে ফেলে প্রতারনার অভিযোগে প্রতারক চক্রের ছয় সদস্যকে আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে বরিশার নগরের ভাটিখানা হাসিনা মঞ্জিলের নির্মানাধীণ ভবন থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে প্রতারনার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া তের হাজার টাকা ও আটটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

আটকৃতরা হলো- মোঃ সুমন সরদার (২৬), মোসাঃ আয়শা আক্তার (২৫), মুন্না চৌধুরী (২৭), মোঃ মনির হাওলাদার (২৫), মোঃ কামরুল খান (২৬), মোঃ জুলহাস সরদার (২৪)। এ ঘটনায় সুমি আক্তার ও মোঃ রেজাউল সহ আরো দুই তিনজনকে পালাতক আসামী করা হয়েছে। এরা সবাই নগরের ভাটিখানা এলাকার বাসিন্দা। পূর্বে থেকেই তারা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে আসছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আজ বুধবার (২৩ জানুয়ারী) দুপুর ১টায় নগরের আমতলার মোড়রস্থ বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার (অতিরিক্ত আইজিপি) মোঃ মোশারফ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কাজের লোক দেওয়ার কথা বলে নগরের রুপাতলী হাউজিং এলাকার প্রফেসর আব্দুস সালামের ভাড়াটিয়া এনজিও কর্মকর্তা মোঃ তারেক খান (৪০)কে ভাটিখানা হাসিনা মঞ্জিলে আসামী তানভীর খানের বাসায় ডেকে নেয় অপর আসামী আয়শা আক্তার।

তারেককে রুমের ভেতরে আটকে রেখে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আসামী আয়শা ও সুমি আক্তার তাঁর গায়ের জামাকাপড় খোলার চেষ্টসহ বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন করে।

এ সময় অপর আসামীরা রুমে প্রবেশ করে এনজিও কর্মকর্তা তারেককে মারধরের পর উলঙ্গ করে ওই দুই নারী প্রত্যারকের সাথে আপত্তিকর ছবি ও পর্ণ ভিডিও ধারন করে পাঁচ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে।

পুলিশ কমিশনার বলেন, এনজিও কর্মকর্তা জীবন রক্ষায় তাঁর বন্ধুর কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা এনে প্রত্যারক চক্রের হাতে দেয়। তবে এতে প্রত্যারক চক্র ক্ষ্যান্ত না হয়ে পুরো টাকা আদায়ের জন্য একটি রুমের ভিতরে আটকে রেখে নির্যাতন করে। বাকী টাকা এনে দেওয়া আশ্বাসে ওই দিনই গভীর রাতে তাকে ছেরে দেয় প্রত্যারক চক্র। এ ঘটনায় ২২ জানুয়ারী মোঃ তারেক খান মহানগর ডিবি পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে সহযোহগীতা চান।

এর পরিপেক্ষিতে মঙ্গলবার রাতে নগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম ওই ভবনে অভিযান পরিচালনা করে। সেখান থেকে নারী প্রত্যারক আয়শাসহ ছয় জনকে আটক করলেও অন্য সহযোগীরা পালিয়ে যায়। এই ঘটনায় রাতেই মহানগরীর কাউনিয়া থানায় এনজিও কর্তকর্তা তারেক খান বাদী হয়ে পর্নগ্রাফি ও মানব পাচার আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে নগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মোয়াজ্জেম হোসেন ভূঞা , মোহামামদ জাহাঙ্গির মল্লিকসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here