বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় ডাকাতি মামলায় গ্রেফতারের পর পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নেতা মামুন সরদার (২৭) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

পুলিশের দাবি, নিহত নেতা মামুন সরদার ডাকাত দলের সদস্য। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে। মামুন হিজলা উপজেলার খুন্না এলাকার মালেক সরদারের ছেলে। সোমবার রাত ২টার দিকে উপজেলার কাজীরহাট থানা এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, একটি পাইপগান, ২ রাউন্ড রাইফেলের গুলি, ২ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, বেশ কিছু গুলির খালি খোসা, দুটি রামদা, একটি শাপল, ছয়টি মুখোশ উদ্ধার করা হয়েছে।

কাজীরহাট থানার ওসি (তদন্ত) আ. খালেক পিপিএম জানান, গত ৫ ফেব্রুয়ারি কাজীরহাট থানায় স্থানীয় পান্না মীরের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় একটি মামলা দায়ের হয়। যে মামলার সূত্র ধরে কয়েক দিন আগে রাসেল হাওলাদার নামে একজনকে আটক করা হয়।

পুলিশ ও আদালতে রাসেলের দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওই ডাকাতি মামুন সরদারের নেতৃত্বে সংগঠিত হয়। যার মালামালও তার কাছে রয়েছে। এর সূত্র ধরে পুলিশ অভিযানে নামে। সোমবার রাত ৮টার দিকে মুলাদী ব্রিজ এলাকা থেকে মামুন সরদারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পরে তার দেয়া তথ্যানুযায়ী, কাজীরহাট থানা এলাকার কাজীরাবাদ ডিগ্রিরপারস্থ মনিরের ইটভাটার পশ্চিমপাশে ডাকাতির মালামাল উদ্ধারে অভিযানে যায় পুলিশ। রাত ২টার দিকে অভিযানের সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মামুনের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়।

এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এর মধ্যে মামুন পালিয়ে যাওয়ার জন্য দৌড় দিলে তিনি গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন। পরে মামুনকে মুলাদী হাসপাতালে নিলে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অপরদিকে মৃতদেহের ময়নাতদন্ত করার পাশাপাশি এ ঘটনায় অস্ত্র আইন, পুলিশের ওপর হামলা, মামুন নিহত হওয়ার ঘটনায় তিনটি মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি।

বরিশাল পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম জানিয়েছেন, নিহত মামুনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here