বরিশালের মুলাদী উপজেলার চরকালেখান গ্রামে জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরধরে ভাতিজার হাতে চাচা আবুল কাশেম খান (৭৫) খুন হয়েছেন। পুলিশ বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালিয়ে হামলাকারীর পিতা ও নিহতের ছোট ভাই ফরহাদ খানকে আটক করেছে।

শুক্রবার সকালে নিহতের ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে হামলাকারী ভাতিজা ফয়সাল খান ও তার সহযোগিরা পলাতক রয়েছে। চরকালেখান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহসিন উদ্দিন খানের ভাইয়ের ছেলে ফয়সাল দীর্ঘদিন থেকে তার চেয়ারম্যান চাচার দাপটে এলাকায় নানা অপকর্ম করে আসছে। নিহত আবুল কাশেম খান মৃত ডাঃ নুরুল ইসলাম খানের পুত্র।

নিহতের পুত্র কাওসার হোসেন জানান, তার দাদা নুরুল ইসলাম মৃত্যুর আগে আবুল কাশেম খানকে ১০ শতক জমি দলিল করে দিয়েছেন। তার চাচা ফরহাদ খান ওই জমি তাদের না দিয়ে জোরপূর্বক ভোগ দখল করছেন। সোমবার তারা (আবুল কাশেম ও কাওসার) ঢাকা থেকে বাড়িতে এসে ঘর নির্মাণের জন্য বাড়ির সামনে থেকে কয়েকটি গাছ কাটেন। এর জেরধরে বৃহস্পতিবার বিকেলে তার চাচা ফরহাদ খানের পুত্র ফয়সাল লোকজন নিয়ে বাড়ির পেছন থেকে তাদের (কাওসার) সম্পত্তির গাছ কাঁটা শুরু করেন। এতে তার বাবা কাশেম খান বাঁধা দিলে ফয়সাল ক্ষিপ্ত হয়ে কুঠারের হাতল দিয়ে তার বাবাকে (কাশেম খান) আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই তার বাবা নিহত হন।

মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল আহসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছেন। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here