বরিশাল নগরীতে মোবাইল ফোন কিনে না দেয়ায় অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল নগরীর জর্ডন রোডের এস্টোরিয়া গার্ডেনের ৪র্থ তলায় ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শিক্ষার্থীর নাম রাজিন কবির বুশরা (১৪)। সে পারাবত-১১ লঞ্চের কেরানী কবির সিকদারের মেয়ে। তারা দীর্ঘদিন ধরে ঐ বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছে। তাদের গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার বেতাগী উপজেলায়। বুশরা নগরীর মামনি কোচিং সেন্টারের ছাত্রী ছিলেন।

সূত্রে জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরেই একটি মোবাইল ফোনের জন্য বাবা-মায়ের কাছে বায়না ধরে আসছিলো বুশরা। সব শেষ গতকাল দুপুরে পরিবারের সাথে ভাত খাওয়ার সময়েও মোবাইল ফোন দাবী করে। এখন ফোন না কিনে দিয়ে তার বাবা পরীক্ষার পরে ফোন কিনে দেয়ার কথা বললে অভিমান করে সে। পরে সে টিভি দেখার কথা বলে রুমে গিয়ে দরজা বন্ধ করে থাকে। বিকেল নাগাদ কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে তার ছোট ভাই স্বাধীন বাবা-মাকে ডেকে আনে। তা মা চাবি দিয়ে দরজা খুলে দেখতে পায় বুশরা গলায় ওরনা পেচিয়ে ফ্যানের সাথে ঝুলে আছে। পরে কিছু বুঝে উঠার আগে তারা শেবাচিমে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

পরে খবর পেয়ে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আসাদুজ্জামান আসাদ ও এসআই মামুন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনাটি আত্বহত্যা বলে নিশ্চিত করেন। এছাড়া বুশরার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here