বরিশাল নগরীতে সাফিয়া আক্তার (২৬) নামে এক গৃহবধূ নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। অভিযোগ রয়েছে- যৌতুক না পেয়ে ওই গৃহবধূকে তার স্বামী কয়েকদফা নির্যাতন করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে শহরের ১০ নম্বর ওয়ার্ডের হিরন কলোনী ও ভাটারখাল এলাকায়।

নিযার্তনের শিকার ওই গৃহবধূ এখন বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সাফিয়া আক্তার রাজধানী ঢাকার আব্দুল মালেক মিয়ার মেয়ে। কিন্তু তিনি বিয়ের পর থেকে স্বামী জসিম হাওলাদারের সাথে নগরীর ১০ নম্বর ওয়ার্ডের হিরন কলোনীতে বসবাস করছিলেন।

নির্যাতনের শিকার সাফিয়া আক্তার জানান- স্বামী জসিম তাঁর কাছ থেকে ব্যবসার কথা বলে একাধিকবার যৌতুক নিয়েছেন। সাম্প্রতিকালে মাদক মামলায় জেল খেটে এই জসিম বের হয়ে যৌতুক দাবি করলে দিতে পারেননি। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে জসিম বেশ কয়েকবার মারধর করেন। সর্বশেষ গত ০৯ ফেব্রুয়ারি হিরন কলোনীর বাসায় গিয়ে একলাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। তখন টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে জসিম ক্ষুব্ধ হয়ে মারধর করেন।

এই বিষয়টি এলাকার ব্যক্তি বিশেষকে অবহিত করলে ওই দিন বিকেলে ভাটারখাল এলাকায় পেয়ে ফের মারধর করে। এলোপাতারি পিটুনিতে সাফিয়া অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয়রা দ্রæত উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে যায়।

হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন- সাফিয়া আক্তারের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। বাম চোখের নিচে বেশি আঘাত লেগেছে। এতে ক্ষত হওয়ার পাশাপাশি ফুলা জখম হয়েছে।

তাকে সুস্থ করতে সময় লাগবে। এছাড়া তার উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন।’

এমতাবস্থায় সাফিয়া আক্তার বলেন- পুরোপুরি সুস্থ্য হয়ে পাষন্ড স্বামী জসিম হাওলাদারের বিরুদ্ধে মামলা করবেন।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here