বরিশালের বাবুগঞ্জে যৌতুকের দায়ে এক গৃহবধূকে অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে পাষণ্ড স্বামীর হাতে। গত মঙ্গলবার রাত ১ টায় গৃহবধূ মুন্নি বেগম (২০) কে তার মা ও ভাই উদ্ধার করে গুরুতর অবস্থায় বরিশাল শেরই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

আহতের মা বকুল বেগম জানান, উপজেলার দেহেরগতি ইউনিয়নের রমজান কাঠি গ্রামের সালাম খলিফার ছেলে সোহেল খলিফার সাথে ২০১৭ সালের ১৮ ইং জানুয়ারি বরিশাল নগরীর ১০ নং ওয়ার্ড কেটিসির এনায়েত মিয়ার মেয়ে মুন্নির সাথে সামাজিকভাবে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

বিয়ের মেহেদি শুকানোর আগেই শুরু হয় মুন্নি বেগমের উপর সোহেল খলিফার অমানবিক নির্যাতন। নির্যাতন সহ্য করেও মুন্নি বেগম দিনের পর দিন সোহেলের সাথে মিথ্যে সুখের সংসার করেছে। এর মধ্যে তাদের কোল জুড়ে আসে একটি মেয়ে মিনহা (১.৫)। এত কিছুর পরেও সোহেল যৌতুকের দায়ে মুন্নিকে দিনের পর দিন অমানবিক নির্যাতন করেই যেত।

এদিকে মেয়ের সুখের জন্য সোহেলকে ৫০ হাজার টাকা দিতে বাধ্য হয় মুন্নির মা বাবা। তার পরেও আরো টাকার জন্য মুন্নিকে প্রায় মারধোর করতো সোহেল। গত সোমবার সোহেল তার শাশুড়ি বকুল বেগমকে রাত ৮টার দিকে ফোন করে টাকা নিয়ে আসতে বলেন। টাকা দিতে অনিচ্ছা পোষণ করায় মুন্নিকে লাঠি দিয়ে পিটায় ও দেশীয় অস্ত্র দা দিয়ে কোপায় । এ ঘটনার পরে সোহেল শ্বশুরবাড়ি ফোন দিয়ে মুন্নিকে নিয়ে যেতে বলেন।

ঘটনার দিন রাতেই মুন্নির মা ও ভাই মনির মিয়া গুরুতর জখম অবস্থায় মুন্নি কে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় যৌতুকলোভী সোহেলের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলে মুন্নির মা বকুল বেগম জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here