গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে শীতের তীব্রতা বেড়েছে বরিশালে। এতে সব চেয় বেশি ভোগান্তিতে পড়েছেন শিশু ও বয়স্ক মানুষসহ জীবন জীবিকায় লড়াই করা খেটে খাওয়া মানুষগুলো।

 

 

বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড বিলগাব বাড়ীর গ্রামের ব্রেজ বিশ্বাস(৭০), পিতা: মৃত. জোগেশ বিশ্বাস ও একই গ্রামের পাশ্বর্তী সুখলাল হালদার(৭৫), পিতা: মৃত. সহাদেব হালদার’এর বৃদ্ধ শরীরে গতকাল রাতে কন কনে শতের তীব্রতা সহ্য করতে না পেরে মৃত্যুবরন করেন বলে জানা যায় স্বজনদের কাছ থেকে। গতকাল ২৬ ডিসেম্বর দিবগিত রাতে মারা জান বলে জানা যায়।

 

 

সরোজমিনে উপস্থিত হয়ে জানা যায় শীতের তীব্র প্রকোপে গ্রামীন দারীদ্র জনজীবন বেলাহগতী। অনেকেরই পরিধার করার মতো নেই শীতের পোশাক। তাই এসব অসহায়াপন্ন মানুষ গুলোর পাশে থাকতে মানবিক দিক চিন্তা করে সরকারী বেসরকারী কিংবা ব্যক্তিগত উদ্দোগ্যে সাহায্য সহযোগিতার জন্য দৃষ্টিপাত আশা করেন স্থানীয় জনসাধারন।

 

 

বরিশাল- উজিরপুরসহ দক্ষিণের বিভিন্ন উপজেলায় বৃষ্টি হচ্ছে। পৌষ মাসের এ বৃষ্টি কখনো থেমে থেমে মাঝারি আকারে হচ্ছে, আবার কখনো গুঁড়িগুঁড়ি।
শীতল হাওয়ার সঙ্গে বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) দিনগত রাত থেকে শুরু হওয়া এ বৃষ্টির কারণে শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) সকালে শীতের প্রকোপ অনেকটা বেড়েছে।

 

 

খানাখন্দে পানি জমে গ্রামীন ও নগরের রাস্তাঘাট কর্দমাক্ত হয়ে পড়েছে। প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে কেউ না বের হচ্ছে না। এতে বরিশাল অঞ্চলের রাস্তাঘাট বেশ ফাঁকাই রয়েছে। এক কথায় জনজীবনে কিছুটা ছন্দপতন এনেছে এ বৃষ্টি।

 

 

আরও ২/১ দিন এ আবহাওয়া বিরাজ করতে পারে বলে জানিয়েছে বরিশালের আবহাওয়া অফিস। বৃহস্পতিবার রাত ৯টা থেকে শুক্রবার সকাল ১০টা পর্যন্ত ১০ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

 

 

পাশাপাশি শুক্রবার সকাল থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
বরিশাল আবহাওয়া অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষক মো. প্রনব কুমার বলেন, শুক্রবার দিনভরই বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এতে শীতের তীব্রতা আরও বাড়তে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here