বরিশাল সদর উপজেলার টুঙ্গিবাড়িয়ার কড়ইতলা নদীতে স্পিডবোটের ধাক্কায় খেয়া নৌকা ডুবে ১২ স্কুলছাত্রী আহত হয়েছে। আহতরা টুঙ্গিবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও উপজেলার চরকেউটিয়া-বদিউল্লাহ গ্রামের বাসিন্দা। শনিবার (২ মার্চ) বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হচ্ছে এ্যানি আক্তার, সানজানা, মারিয়া, অনামিকা, সুমাইয়া, ফেরদৌসি, ঝর্ণা, বর্ষা, সুমি, হ্যাপি, রিমা ও টুবা। আহতদের মধ্যে ৫ জনকে শেরই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শেবামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আমিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, তারা যত না আঘাত পেয়েছে তার চেয়েও বেশি ভয় পেয়েছে। তাদেরকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয় মেম্বর আব্দুল সোহাগ মল্লিক জানান, স্কুল ছুটির পর ১২ জন ছাত্রী টুঙ্গিবাড়িয়া নতুনহাট খেয়াঘাট থেকে খেয়ানৌকায় ওঠে। নৌকাটি মাঝ নদীতে যাওয়ার পর ভোলা থেকে বরিশালগামী দ্রুতগামী স্পিডবোট খেয়ানৌকাটিকে ধাক্কা দিয়ে চলে যায়। সঙ্গে সঙ্গে নৌকাটি ডুবে যায়। নদীতে থাকা অন্য স্পিডবোট ও নৌকার মাঝিরা এবং নদীপার থেকে লোকজন এসে দ্রুত তাদের উদ্ধার করে। তবে ঘটনায় জড়িত স্পিডবোটটিকে আটক করা যায়নি।

এ ঘটনার পর চিকিৎসাধীন শিক্ষার্থীদের খোঁজখবর নিতে হাসপাতালে আসেন উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোয়াজ্জেম হোসেন। তিনি জানিয়েছেন, এ ঘটনায় অভিযুক্ত স্পিডবোট চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরসহ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here