সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত পত্রিকা বিক্রেতা মোঃ মাজহারুল ইসলাম বাদল (৫০) গুরুতর অবস্থায় শেরে-বাংলা মেডিকেল হাসপাতালের বিছানায় কাতারাচ্ছেন।

মেডিকেল সুত্র জানায়,তার পা পায়ের জোড়ার হাড্ডি, নলা ভেঙ্গে গেছে, এমন অবস্থায় তাকে দ্রুত অপারেশন না করালে জীবনের তরে পঙ্গু হয়ে যেতে পারেন বলে জানা যায়।

এ ঘটনায় পত্রিকা বিক্রেতাদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।মোঃ মাজারুল ইসলাম বাদল টানা একযুগ ধরে বরিশাল সংবাদ পত্র হর্কাস ইউনিয়নের সভাপতি ছিলেন।

এখনও তিনি বরিশাল সদর সংবাদ পত্র হর্কাস ইউনিয়নের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। বাদল কাউনিয়া এলাকার বাসিন্দা। সে দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে পত্রিকা বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে।

গত শনিবার সকালে পত্রিকা বিক্রি করার সময় নগরীর লাইন রোডের মুখে থেকে সড়ক পারাপারের সময় একটি গ্যাস চালিত সিএনজি পেপার বোজাই বাই সাইকেলকে ধাক্কা দিলে বাদল নিচে পড়ে যায়।এবং বা পায়ের উপর দিয়ে গাড়িটির চাক্কা চলে যায়, এতে সে বা পায়ে গুরুতর আহত হন তিনি ।

সাথে সাথে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে শেবাচিমের ৩য় তলা ওর্থোপ্যাটিকে ভর্তি করেন। তার বেড নং ৬। এ ব্যাপারে পত্রিকা বিক্রেতা ইউনিয়নের একাধিক ব্যক্তি জানান, অনেকেই পত্রিকা বিক্রি করে অতি কষ্টে তাদের পরিবার নিয়ে জীবন যাপন করেন।

বাদল তাদের মধ্যে একজন। সে আহত হওয়ার কারণে তার পরিবার অনেক কষ্টে জীবনযাপন করছে। তার এক ছেলে এক মেয়ে। মেয়ের এমাসেই অর্নাসের ফরম ফিলাপ এমন অবস্থায় বাদলের চিকিৎসা এবং মেয়ের ভর্তি, বাদলই ছিলো পরিবারের উপর্জনকারী সব মিলিয়ে হতাশায় ভুগছেন বাদলের পরিবার।

এমন অবস্থায় কোন পেপারের এজেন্সি, সমিতি বা কোন সংগঠনের পক্ষ থেকে আর্থিক সাহায্য পাননি বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে জানাযায়।

এ ব্যাপারে সরেজমিনে গেলে বাদল আবেগআগ্লুত হয়ে পরেন, তিনি কান্নাজনিত কন্ঠে বলেন ভাই আমার জন্য দুইটি লাইনের মাধ্যামে সবাইকে জানিয়ে দিন আমি ভালো নেই।

খুব কস্টে আছি অর্থনৈতিক ভাবে। যদি পারেন মেয়রমহোদয়ের কাছে খবরটি পৌছাবেন। আমি আবার সুস্থ হতে চাই। পরিবারের জন্য। গ্রাহকের জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here