গতকাল ২০ নভেম্বর বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার মাধবপাশা এলাকার দুর্গাসাগর দীঘিতে সাঁতার কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া ওমোর ফারুক হৃদয় (২৫) নামের এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম। এদিকে নিখোঁজ হবার ৯ ঘণ্টা পর রাত ৯টার দিকে দিঘীর মধ্যবর্তী টিলার কাছ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরি টিম। মৃত হৃদয় ঢাকার আহসানউল্ল্যাহ ইউনিভার্সিটির টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র এবং বরিশাল নগরীর ৩ নং ওয়ার্ডের কাউনিয়া হাউজিং এলাকার শাহ আলমের ছেলে, বাবা পেশায় পুলিশ কর্মকর্তা। হৃদয় মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) ঢাকা থেকে বরিশালে তার নিজ বাড়িতে আসে। আজ ২০ নভেম্বর বন্ধুদের সঙ্গে দূর্গাসাগরে ঘুরতে গিয়ে সাঁতার কাটতে গিয়েই নিখোঁজ হন।

নিখোঁজ হৃদয়ের বন্ধু হৃদয় খান (২৫) বলেন, আড্ডার এক পর্যায়ে হৃদয় সাঁতার কেটে দীঘির মাঝখানের টিলার কাছে যাবে এবং আবার সাঁতরে সেখান থেকে ফিরে আসার কথা বলে জামা-কাপড় পাল্টে হৃদয় দীঘির দক্ষিণ প্রান্ত থেকে উত্তর প্রান্তে সাঁতার কেটে যায়। টিলার কাছাকাছি গিয়ে হৃদয় বন্ধুদের উদ্দেশ্যে হাতও নাড়ায়। আর এর কিছুক্ষণ পর তার কোনো খোঁজ না পেয়ে বন্ধুরা বিষয়টি দীঘি পরিচালনা কর্তৃপক্ষে অবহিত করেন। বিষয়টি জানতে পেরে সাথে সাথে জেলা প্রশাসক বরিশাল সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করে। কিছু সময়ের মধ্যে বরিশাল থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে।
এদিকে জেলা প্রশাসক বরিশালের নির্দেশক্রমে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরিশাল শহিদুল ইসলাম এবং আরডিসি বরিশাল উর্মি ভৌমিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজের সার্বিক তদারকি করেন। দুর্ঘটনার বিষয়ে মুঠোফোনের মাধ্যমে সার্বিক খোঁজখবর নেন জেলা প্রশাসক বরিশাল এস, এম, অজিয়র রহমান। এসময় ফায়ার সার্ভিস পুলিশের একাধিক টিমের পাশাপাশি বিআইডব্লিউটিএর বেসরকারি ডুবুরি টিমের সাথে জেলেরা জাল টেনে উদ্ধার কাজে সহযোগিতা করেন। দিঘির গভীরতা ও দুর্ঘটনার সঠিক স্থান নির্ধারণ করতে না পারায়। উদ্ধার কাজে কিছুটা সময় লাগলেও রাত ৯ টার দিকে নিখোঁজ হৃদয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ সুরতহাল করে মরদেহ থানায় নিয়ে যায়। সেখান আইনগত কিছু কার্যক্রম শেষ করে পরিবারের মতামত শেষে হৃদয়ের মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলেও জানান ওসি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here