বরিশাল নদীবন্দরে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে ঈদ পূর্ব ও পরবর্তী সম্মানিত লঞ্চ যাত্রীদের নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা রক্ষা এবং স্বাচ্ছন্দে নির্বিঘ্নে যাতায়াতের সুবিধার্থে ৭ দিনের জন্য মোতায়নকৃত আনসার-ভিডিপি সদস্যদের ডিউটি ছিল প্রশংসনীয়। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও পবিত্র ঈদ-উল-আযহা পূর্ব ও পরবর্তীতে প্রতিদিন পল্টুনে লক্ষাধিক লঞ্চ যাত্রীদের নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলায় সাহসিকতার সাথে প্রসংসনীয় ভূমিকায় ছিল আনসার ভিডিপি সদস্যরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, নৌ বন্দরের প্রতিটি গেট, কাউন্টার, গ্যাংওয়ে ও পল্টুনে নিরাপত্তা বেষ্টনির চাদরে ঘিরে রেখেছিল আনসার বাহিনীর সদস্যরা। ছিনতাইকারী, মলমপার্টি ও অজ্ঞানপার্টিদের ব্যাপারে ছিল তাদের সচেষ্ট নজরদারী। অধিক সতর্কতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনে দেখাগেছে আনসার সদস্যদের মধ্যে নেতৃত্বে ছিলেন আনসার ভিডিপির সদস্য মোঃ সুমন। এছাড়াও নদীবন্দর বরিশাল কর্তৃক লঞ্চ যাত্রীদের সুবিধার্থে সুশৃঙ্খল ব্যবস্থাপনায়ও ছিলনা কোন কমতি। লঞ্চ যাত্রীদের পোহাতে হয়নি কোন দূর্ভোগ। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে একাধিক লঞ্চ যাত্রী বলেন নিরাপত্তা, আইন শৃঙ্খলা ও ব্যবস্থাপনায় জোরালো থাকায় যার যার গন্তব্যে সঠিক ভাবে যেতে পেরেছে যাত্রীগন। তাছাড়া নদীপথে ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে লঞ্চ যাত্রীদের নিরাপত্তার সুবিধার্থে এ বছরই প্রথম নদীবন্দর বরিশালের অনুমতি সাপেক্ষে লঞ্চ টার্মিনালের ভিতরেই বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর বরিশাল জেলা কার্যালয়ের মাধ্যমে একটি নিয়ন্ত্রন কক্ষ খোলা হয়েছিল।

সেখানে যাত্রীদের বিভিন্ন নিরাপত্তা, সমস্যা ও সেবা প্রদান করা হয়েছে। তদারকির এক পর্যায়ে জেলা কমান্ডেন্ট জনাব সৈয়দ ইফতেহার আলীর নির্দেশনা মোতাবেক ডেঙ্গু প্রতিরোধ সংক্রান্ত একটি করে লিফলেট প্রায় সকল যাত্রীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এতে সহায়তা করেন দায়িত্বপ্রাপ্ত আনসার কমান্ডার ও আনসার ভিডিপি সদস্য মোঃ সুমন, ভিডিপি সদস্য মোঃ হাসান হাওলাদার ও অন্যান্য সদস্যাগন এবং জেলা কার্যালয়ের হিসাব রক্ষন অফিসার জনাব মোঃ রফিকুল ইসলাম। উক্ত পথে আসা ও যাওয়া যাত্রীগন উক্ত লিফলেট গ্রহন করে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে উপ-পরিচালক (বওপ) নৌবন্দর বরিশাল জনাব আজমল হুদা মিঠু সরকার বলেন, প্রতিদিন লক্ষাধিক লঞ্চ যাত্রীদের উপচে পড়া ভিরের মাঝেও নিরাপত্তা, শৃঙ্খলা ও দায়িত্ব কর্তব্যে আনসার ভিডিপি সদস্যরা অত্যান্ত সাহসিকতার সাথে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখেছেন। আমি তাদের আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এছাড়াও র‌্যাব, পুলিশ সহ অন্যান্য প্রশাসনিক কর্মকর্তারাও আনসার সদস্যদের দায়িত্ব কর্তব্যের প্রতি প্রশসংসা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here