বরিশাল সরকারী পলিটিকনিক্যাল কলেজ ইনস্টিটিউট কলেজ ক্যাস্পাসে দু’গ্রুপ শিক্ষার্থীরা মুখামুখি অবস্থান নিয়ে পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। আজ রবিবার বেলা ১২টায় কলেজ ক্যাম্পাসে কয়েকশত মেয়ে-ছেলে সাধারন শিক্ষার্থী ঐক্যবদ্ব হয়ে ইলেকটমেডিবল বিভাগীয় প্রধান চীফ ইনেস্টক্টর মোঃ আনিচুর রহমানকে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে ক্যম্পাসের কম্পিউটার ভবনের সামনে বিক্ষোভ ও মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

পরবর্তীতে বিভাগীয় প্রধান আনিচুর রহমানের অনুরোধে শিক্ষার্থী মেনিলা,তন্নি,অভিজিৎ,হাবিব, নাজিম,মুসফিক,রাসেদ,রানা পাভেল ও হাসিব এর নেতৃত্বে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
পরবর্তীতে মোঃ সাজ্জাদ আহমেদ শান্ত ও মোঃ জুনায়েদ ইসলাম রাফি এসে শিক্ষক আনিচুর রহমানের অনুরোধে কর্মসূচি বন্ধ করে তাদেরকে শান্ত করে নিজ নিজ স্থানে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করা হলে সাধারন শিক্ষার্থীরা ফিরে যায়।

অপরদিকে কলেজ ক্যাম্পাসে অবস্থিত মুক্তিযোদ্বা আবাসিক হলের হলের শিক্ষার্থীরা বিভাগীয় প্রধান আনিচুর রহমানের বিরুদ্বে শ্লোগান দিয়ে ক্যাস্পাসে বিক্ষোভ করে।
এসময় তারা ক্লাশ বন্ধ করে জোড় করে ক্যাম্পাসের প্রধান ফটক বন্ধ করে শিক্ষার্থীদের আটকে রেখে জোড় পূর্বক বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ গ্রহন করতে বাধ্য করতে দেখা যায়।

এবিষয়ে মুক্তযুদ্বা আবাসিক ছাত্রাবাসের সিভিল ডিপার্টমেন্টের ৬ষ্ট পর্বের শিক্ষার্থী মোঃ শাকিল জানান শিক্ষক আনিচুর রহমান প্রায় সময় আবাসিক শিক্ষার্থীদের উপর নানা কারনে নির্যাতন করে আসার কারনেই তাদের এই প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে আসছে।
এছাড়া মোঃ সাজ্জাদ আহমেদ শান্ত ও মোঃ জুনায়েদ ইসলাম, রাফি নিজেদেরকে শিক্ষার্থী দাবী করে বলেন আমরা ক্যাম্পাসে শিক্ষার পরিবেস বজায় রাখার জন্য ও শিক্ষক আনিচুর রহমানকে হোস্টেলের শিক্ষার্থীরা লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে সাধারন শিক্ষার্থীরা বিচার দাবী করে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করলে শিক্ষকদের অনুরোধে আমরা সাধারন শিক্ষার্থীদের কর্মসূচি বন্ধ করে দিয়ে তাদের নিজ নিজ স্থানে ফিরে যেতে সহযোগীতা করেছি।

উল্লেখ্য ৬ই এপ্রিল সকালে মুক্তিযুদ্বা আবাসিক হলের কয়েকজন শিক্ষার্থীকে মারধর করার অভিযোগ এনে উক্ত হলের শিক্ষার্থীরা শিক্ষক আনিচুর রহমানের বিরুদ্বে বিভিন্ন শ্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ কর্ ে
এসময় পাল্টাপাল্টি দু’গ্র“প শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বর্তমানে বরিশাল সরকারী পলিটেকনিক্যাল কলেজ ইনস্টিটিউটের অভ্যন্তরে দু’গ্র“পের ভিতর উত্তেজনা বিরাজ করছে যেকোন সময়ে ঘটতে পারে বড় ধরনের সহিংস ঘটনা।
এব্যাপারে এলাকাবাশী উক্ত এলাকার পরিবেশ পরিস্তিতি শান্ত বজায় রাখার জন্য প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here