????????????????????????????????????

শামীম আহমেদ ॥বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য’র (ভিসি) পদত্যাগ অথবা ছুটির বিষয়ে লিখিত চেয়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের দেয়া ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম শেষে পুনরায় বরিশাল-পটুয়াখালী-ভোলা মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

আন্দোলনের ১৫ তম দিনে আজ মঙ্গলবার (০৯ এপ্রিল) দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী সদর উপজেলার কর্ণকাঠি এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধর মাধ্যমে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তারা।

এর ফলে সড়কের বরিশাল-পটুয়াখালী ও লাহারহাট প্রান্তে যাত্রী ও পন্যবাহী সহ বিভিন্ন যানবাহনের দীর্ঘ লাইন পড়েছে। যাত্রীদের গাড়ি থেকে নেমে দুই কিলোমিটার সড়ক পায়ে হেটে গিয়ে বিকল্প ব্যবস্থা গন্তব্যে পৌছতে হচ্ছে। এতে করে সীমাহিন ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যারা। বিশেষ করে নারী, শিশু ও বয়স্ক যাত্রীদের ভোগান্তির শেষ নেই।

এদিকে ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের নামে মহাসড়ক অবরোধ করে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন সাধারণ যাত্রী, পরিবহন শ্রমিক ও পথচারীরা। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সহযোগিতাও চেয়েছেন তারা।

অপরদিকে আজ মঙ্গলবার (০৯ এপ্রিল) রাজধানীর কলাবাগানে বিশ্ববিদ্যালয়ের লিয়াজু অফিসে দ্বিতীয় দফায় বসছে সিন্ডিকেট এর সভা। ওই সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান পরিস্থিতি নিরসনে সিদ্ধান্তের আশা করছেন শিক্ষার্থীরা। তবে সভায় শিক্ষার্থীদের পক্ষে কোন সিদ্ধান্ত না আসলে বুধবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালনের ঘোষনা দিয়েছেন তারা।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি লোকমান হোসেন ও মহিউদ্দিন আহমেদ সিফাত জানান, ‘ববি’র দুর্নীতিবাজ ভিসি’র পদত্যাগ ও ছুটি’র বিষয়ে সোমবার তারা ঘন্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করেছেন। পরে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে সড়ক অবরোধ তুলে নেন। সে অনুযায়ী আজ সোমবার দুপুর ১টায় আন্দোলনের আল্টিমেটামের সময় শেষ হয়েছে।

কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ভিসি’র পদত্যাগ বা ছুটির বিষয়ে আমরা এখনো কোন লিখিত পাইনি। আর তাই আন্দোলনের ১৫ দিনের মাথায় পুনরায় মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন। তবে জনদূর্ভোগের কথা চিন্তা করে দুপুর ২টায় সড়ক অবরোধ তুলে নেয়া হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে ক্যাম্পাসের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি এবং বেলা ১২টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করেছেন বলে শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে।

অপরদিকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার ড. হাসিনুর রহমান বলেন, ‘চলমান পরিস্থিতি নিরসনে সন্ধ্যায় দ্বিতীয় বারের মত ঢাকার লিয়াজু অফিসে সিন্ডিকেট এর সভা অনুষ্ঠিত হবে। ওই সভায় শিক্ষার্থীদের দাবীর বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

উল্লেখ্য, স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের আয়োজনে শিক্ষার্থীদের না রাখায় ২৬ মার্চ আন্দোলন করেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। জন্য ভিসি তাদের রাজাকারের বাচ্চা বলে গালি দেন বলে অভিযোগ তোলেন শিক্ষার্থীরা। আর তাই ভিসি’র পদত্যাগ দাবীতে ২৬ মার্চ থেকে লাগাতার আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে আসছে তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here