বরিশাল র‌্যাব-৮ এর অভিযানে জেএমবির সক্রিয় এক সদস্যকে আটক করা হয়েছে। শনিবার (২৭ এপ্রিল) রাতে পিরোজপুর জেলার মঠবাড়ীয়া থানার বাবুর হাট এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটককৃতের নাম আবুল কালাম আজাদ ওরফে আবুল কালাম ওরফে মহুরী ওরফে নূরুল ওরফে নূরে আলম ওরফে নুরু (৪৫)। বরগুনা জেলা সদরের বড় গৌরীচন্না এলাকার মৃত আঃ ওহাব বিশ্বাসের পুত্র তিনি।

র‌্যাব-৮ সূত্রে জানা গেছে- গ্রেফতারকৃত আবুল কালাম আজাদ@আবুল কালাম@মুহুরী@নূরুল@নূরে আলম@নুরু প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে যে সে জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য। সে গৌরীচন্না উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি পাশ করে ও পেশায় একজন মুহুরী। সে ২০১২ সালে জসিমউদ্দীন রহমানির সাথে সরাসরি পরিচয়ের সুবাদে উগ্রপন্থী কার্যক্রম তথা জঙ্গীবাদের দিকে অনুপ্রাণিত হয়। সে সময় থেকেই জসিমউদ্দীন রহমানির সাথে সে ঘনিষ্ঠ হিসেবে আরো যুবকদের অনুপ্রাণিত করার কাজ করতে থাকে। ২০১৩ সালে গোপন বৈঠক করাকালীন সে পুলিশের হাতে জসিমউদ্দীন রহমানিসহ গ্রেফতার হয়। ঐ মামলায় জামিনে আসার পর থেকে জেএমবির মতবাদে অনুপ্রেনিত হয়ে বিভিন্ন স্থানে পালিয়ে দাওয়াতি কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল।

তার মাধ্যমে র‌্যাব-৮ কর্তৃক গ্রেফতার আতিকুর রহমান @ বাবু @ শাওন, মানিক বেপারী, আব্দুল্লাহ, আল আমিন, মাইনুদ্দিন, মেহেদী হাসান @ মিরাজ উগ্রপন্থী কার্যক্রমে আকৃষ্ট হয়। র‌্যাব কর্তৃক আতিকুর রহমান @ বাবু @ শাওন, মানিক বেপারী, আব্দুল্লাহ, আল আমিন, মাইনুদ্দিন, মেহেদী হাসান @ মিরাজ গণ গ্রেফতার হওয়ার পর সে পুরোপুরি গা ঢাকা দেয়। দীর্ঘদিন যাবত গোয়েন্দা কার্যক্রমের মাধ্যমে তাকে সর্বশেষ পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া থানাধীন বাবুর হাট বাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। সে দাওয়াতি শাখার একজন সক্রিয় সদস্য।

গ্রেফতারকৃত আবুল কালাম আজাদ @আবুল কালাম@মুহুরী@নূরুল@নূরে আলম@নুরু’র বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন। তার অন্যান্য সহযোগীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য র‌্যাব-৮ তৎপর রয়েছে বলে জানা গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here