বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে থেকে ঝালকাঠী গ্রামীণ ব্যাংক কর্মকর্তার চুরি যাওয়া মোটরসাইকেল ২০ মিনিটের মধ্যে উদ্ধার করাসহ একজনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে মেট্রোপলিটন ট্রাফিক পুলিশ।
আজ শনিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে নগরীর কাকলীর মোড় ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে থেকে উদ্ধার করা ডিসকোভার মোটর সাইকেল।  যার নং বরিশাল হ-১১-৬৬৭৯।

বাইকের মালিক আখতার জামান ও ট্রাফিক প্রশাসন সামসুল আলম জানান, সকাল নয়টার দিকে ঝালকাঠী গ্রামীণ ব্যাংকে কর্মরত আখতার জামান বিশেষ কাজে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইমার্জেন্সি গেটের সামনে তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি রেখে ভিতরে যায়।

পাঁচ মিনিট পরে ফিরে এসে তার মোটরসাইকেলটি দেখতে না পেয়ে তাৎক্ষনিক সার্জেন্ট শহিদুল ইসলামকে অবহিত করেন।
মূহুর্তের মধ্যে ওয়াকিটকির মাধ্যমে নগরীর সকলস্থানে কর্মরত ট্রাফিক সার্জেন্ট ও কনষ্টেবলদের জানিয়ে দেওয়া হয়।
প্রায় বিশ মিনিট পর নগরীর কাকলীর মোড় ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে দিয়ে তিনজনসহ চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি নিয়ে যাবার সময় সার্জেন্ট ইমনের সিগনালে পরে উক্ত চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি।
এসময় মোটরসাইকেলে থাকা বেল্লাল ও শহিদুল চুরি কাজে জড়িত দুই সদস্য দৌড়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও চালক আবু হাসেম (৩০)কে আটক করেন সার্জেন্ট ইমন।

চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি তাৎক্ষনিক উদ্ধারের সংবাদ শুনে মোটরসাইকেলের মালিক আখতার জামান, ট্রাফিক বিভাগের এসি ফাইজুর রহমান,টি আই প্রশাসন সামসুল আলম, সার্জেন্ট মাহাবুব হোসেনসহ ট্রাফিক সদস্যরা হাজির হন।

মোটরসাইকেল চোর আবু হাসেম জানান তার বাড়ি সিরাজগঞ্জ,পিতা ইমান আলি। এছাড়া পালিয়ে যাওয়া বেল্লার ও শহিদুল ইসলাম তিনজনই ঢাকায় থাকার সুবাধে সাথে পরিচয় হয়। ওরাই আবু হাসেমকে শুক্রবার বরিশালে নিয়ে আসে এরপর তারা শহরের একটি আবাসিক হোটেলে রাত্রি যাপন করেই শনিবার সকালে শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকায় এসে বাইকের লক ভেঙ্গে সটকে পড়ে উক্তস্থান থেকে।

এ ব্যাপারে সার্জেন্ট ইমন বাদী হয়ে কোতয়ালী মডেল থানায় আবু হাসেমসহ তিন জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here