শামীম আহমেদ ॥ বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু জ্বর আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। তবে হাসপাতাটিতে চিকিৎসক সংকটের কারণে রোগীদের নিয়ে ক্রমশ শঙ্কা বাড়ছে। এখানে চিকিৎসকদের অধিক পদ শূণ্য থাকায় ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসা দিতে খুবই হিমশিম খেতে হচ্ছে বলে জানান হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেন।

তিনি জানান, হাসপাতালে ডেঙ্গু রেগের চিকিৎসার উপকরণের কোন সংকট না থাকলে তীব্র চিকিৎসক সংকট রয়েছে। পুরানো পাঁচশ বেডের হিসেব অনুযায়ী তাদের হাসপাতালে ২’শ ২৪ জন চিকিৎসকের মধ্যে ১’শ ২ জন চিকিৎসকের পদ শূণ্য রয়েছে। যার কারণে হাসপাতালের চিকিৎসকরা অক্লান্ত পরিশ্রম করছে। তবে সামনে ঈদ-উল-আযাহা থাকায় রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন গ্রামের বাড়িতে আসায় ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যার কারণে এই মুহুর্তে চিকিৎসক সংখ্যা বাড়ানো দরকার।

তিনি আরো জানান, গত ১৬ জুলাই থেকে এযাবৎ পর্যন্ত এই হাসপাতালে ৪’শ ৪৬ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিয়েছে। বর্তমানে এই হাসপাতালে ২২৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছে। আর চব্বিশ ঘন্টায় এখানে নতুন ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৬৯ জন আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৬ জন।

বরিশাল শেবাচিম পরিচালক ডা. বাকির হোসেন বলেন, তাদের হাসপাতালে ৪শ ৪৬জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হলেও দুই জন ছাড়া কোনো মৃত্যু নেই। যার কারণে ধরে নেয়া যায় ডেঙ্গু নিয়ে আতংকিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। এ সময় তিনি পরামর্শ দেন ঢাকায় যারা ডেঙ্গু রোগ নিয়ে অবস্থান করছেন, তাদের সেখানেই চিকিৎসা নেওয়ার আর ঢাকা থেকে লঞ্চগুলো ছাড়ার সময় এবং মাঝপথে এলে দু’বার মশার ওষুধ স্প্রে করার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here