জালিয়াতির মাধ্যমে ২৪ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় বাংলাদেশ ব্যাংক বরিশাল শাখার চাকরিচ্যুত সহকারি ব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও ২০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক। একই সাথে অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় মামলার অপর তিন আসামিকে বেকসুর খালাশ দেওয়া হয়।

বুধবার (২০মার্চ) বিকেলে বরিশাল বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. মহসিনুল হক আসামির অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আবুল কালাম আজাদ মাদারীপুর কালকিনির দক্ষিণ বাশঁগাড়ি এলাকার মৃত আব্দুল মোতালেবের ছেলে।

খালাশপ্রাপ্তরা হলেন, বর্তমানে ঢাকায় কর্মরত সাবেক মহাব্যবস্থাপক চৌধুরী মহিদুল হক, সাবেক সহকারী ব্যবস্থাপক ময়েজ উদ্দিন ও সহকারী ব্যবস্থাপক (ক্যাশ) আব্দুল মোতালেব।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০৩ সালের ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ২০০৩ সালের ৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাংক বরিশাল শাখায় কর্মরত থেকে আবুল কালাম আজাদ ছদ্মনাম আলাউদ্দিন আহমেদ ব্যবহার করে ১২ লাখ টাকা মূল্যের তিনটি সঞ্চয়পত্রের হিসাব খুলেন। দুই বার নগদায়ন করে সরকারের ২৪ লাখ ১১ হাজার ৬১২ টাকা তুলে আত্মসাত করেন।

এ ঘটনায় ২০০৫ সালের ২ জুলাই কোতোয়ালি মডেল থানায় সরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আবুল কালাম আজাদকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেন ব্যাংকের সংস্থাপন শাখার উপ-ব্যবস্থাপক এ কে এম ফরিদ উদ্দিন। ২০১০ সালের ৫ আগস্ট মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা দুদকের সহকারি পরিচালক এম এইচ রহমতউল্লাহ আবুল কালাম আজাদসহ চারজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট জমা দেন। ১৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহন শেষে বিচারক এই রায় দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here