বরিশালে বাবুগঞ্জে গড়ে উঠেছে একাধিক কিশোর গ্যাং। যারা নিরবে অপরাধ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে গোপনে। যাদের হাতে প্রতিদিন নিগৃহীত হচ্ছে বহু স্কুল কলেজ পড়ুয়া মেয়েরা। এমনকি ইভটিজিংয়ের মত ঘটনা ঘটছে অহরহ যা ও সামাজিক লোক লজ্জার ভয়ে মুখ খুলছেন না ভুক্তভূগির পরিবাররা।

এমন পরিস্থিতি প্রতিনিয়ত চলতে থাকলে বাবুগঞ্জে কিশোরদের হাতে বড় ধররেন অঘটন ঘটার সম্ভাবণার রয়েছে বলে মনে করছেন অভিজ্ঞজনরা।

অনুসন্ধানে জানা যায়, বাবুগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কথিত ‘বড় ভাইদের’ প্রতাক্ষ ও পরোক্ষ মদদে বাবুগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ভিত্তিক গড়ে উঠেছে ছোট বড় বেশ কয়েকটি কিশোর গ্যাং। এসব গ্রপের বেশির ভাগ সদস্যের বয়স ১৩ থেকে ২০ বছরের মধ্যে। গ্রুপের সদস্যরা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চ্যাট গ্রুপ তৈরি করে নিজের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করে। এরা প্রত্যহ সন্ধ্যা থেকে রাত ১০টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত কলেজ গেট, বাবুগঞ্জ বাজার, পাঁচ রাস্তা, কেদারপুর ইউনিয়নের ক্লাবগঞ্জ বাজার এলাকায়, ফায়ার সার্ভিস এলাকা, এয়ারপোর্ট থানা এলাকার নতুন হাট, মোহনগঞ্জ বাজারসহ বেশ কয়েকটি স্পটে আড্ডাসহ মাদক সেবন করে।

এসব গ্রুপগুলো নিয়ন্ত্রণ করেন সংশ্লিষ্ট এলাকার কথিত কিছু বড় ভাই। তারাই এসব কিশোরদের সাহস যুগিয়ে অপ্রতিরোধ্য করে তুলছে। অপরাধ জগতে পা বাড়াতে উৎসাহ দেন। অনেক বড় ভাই নিজের মাদক ব্যবসা, অপরাধ রাজ্য ধরে রাখতে ব্যবহার করছে কিশোর গ্রুপের সদস্যদের।

এদিকে অনুন্ধানে দেখা গেছে বিভিন্ন সময় ছাত্রী যৌণ হয়রানী, মাদকসেবন ও বিক্রির দায়ে বিভিন্ন সময় থানা পুলিশের হাতে বেশ কয়েকজন কিশোর অপরাধী ধরা পরলেও বয়স ও স্থানীয় কতিপয় নেতাদের জোর-সুপারিশে ছাড়া পেয়ে আবার বেপরোয়া হয়ে উঠছে। অচিরই এদের নিয়ন্ত্রণ না করলে ভবিষ্যতে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠবেন বলে মনে করেন সাধারণ মানুষ। তাই আইনশৃংখলা বাহিণীর কাছে তাদের দাবী এ সব কিশোরদের নিয়ন্ত্রণ করে সামাজিক অবক্ষয় থেকে সমাজকে মুক্ত করার।

এ ব্যপারে বাবুগঞ্জ থানার অফিসার ইন চার্জ মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, ইতোমধ্যেই আমার কাছে এম কিছু অভিযোগ নাম সহ এসছে অচিরেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here