রাজশাহী-কুমিল্লা ম্যাচে কী দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিই না করলেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান লরি ইভান্স। অথচ, এবারের বিপিএলে আজকের আগ পর্যন্ত তাঁর পারফরম্যান্স এত খারাপ ছিল যে তিনি ভেবেই রেখেছিলেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিপক্ষে ম্যাচটিতে টিম ম্যানেজমেন্ট তাঁকে বসিয়ে রাখবে। কিছুদিন আগে আফগান প্রিমিয়ার লিগ (এপিএল) খেলেছেন, আমিরাতে খেলেছেন টি-টেন টুর্নামেন্ট। এরপর ছুটিতে ছিলেন। ছুটির মধ্যেই বিয়ে করেন এই ইংলিশ ক্রিকেটার। এরপরই খেলতে চলে এসেছেন বিপিএল।

এপিএলে তাঁর পারফরম্যান্স দুর্দান্ত। ৯ ম্যাচ খেলে করেছেন ৩০৫। চতুর্থ সেরা রান সংগ্রাহক ছিলেন তিনি। আমিরাতের টি-টেন ক্রিকেটেও ২ ইনিংসে ৬৫ রান। ১০ ওভারের ক্রিকেটের হিসাবে বেশ ভালোই। ছুটিতে বিয়ে করেই বিপিএলে খেলতে আসেন। কিন্তু ইভান্সের দুঃখ ছিল, এপিএল কিংবা টি-টেন লিগের সেই ফর্মটা ধরে রাখতে পারেননি বলে, ‘কীভাবে কী হলো, বুঝতে পারছি না। গতকাল অনুশীলনের সময় বেশ ভালো বোধ করছিলাম প্রথমবারের মতো। আফগান প্রিমিয়ার লিগ আর টি-টেন লিগের পর কিছুদিনের ছুটিতে ছিলাম। সে সময় বিয়ে করেছি। তাই বাংলাদেশে যখন খেলতে এলাম, সেই ফর্মটা নিয়ে আসতে পারিনি।’

বিপিএলে এসেই সমস্যার মধ্যে পড়েছিলেন। এখানকার উইকেট নাকি বড্ড কঠিন মনে হচ্ছিল তাঁর কাছে, ‘এখানে এসে দেখলাম উইকেট খুব কঠিন। আমি দেশে যে ধরনের উইকেটে খেলি, তার চেয়ে কঠিন আর অন্য রকম। বিপিএলে ক্রিকেটের মানও খুব ভালো। খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। আমি কেবলই আমার মৌলিক খেলাটায় ফেরত গেছি নিজেকে ভালোভাবে তুলে ধরতে। আজ টপ অর্ডারে সুযোগ পেয়েছিলাম। সুযোগটা ছিল দারুণ। আমি মনে করি কঠোর পরিশ্রমেই সাফল্যটা পেলাম।’

পরিশ্রম করেই এবারের বিপিএলের প্রথম সেঞ্চুরিটা পেয়ে গেলেন। এ জন্য তিনি রাজশাহী কিংস টিম ম্যানেজমেন্টের প্রতিই কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। এটি বেশি করেই বলছেন, কারণ তিনি আজকের ম্যাচে সুযোগ পাওয়ার মতো পারফরম্যান্স করছিলেন না, ‘আমি টিম ম্যানেজমেন্টের প্রতি কৃতজ্ঞ। কোচের প্রতিও কৃতজ্ঞ। তাঁরা আমার ওপর আস্থা রেখেছেন। আজকের ম্যাচে একাদশে সুযোগ পাওয়ার মতো খেলা আমি খেলিনি। আজকের ম্যাচে দলে থাকাটা আমার মোটেও প্রাপ্য ছিল না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here