অনলাইন ডেস্ক :: জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার তাজপুর গ্রামে এক মাদরাসা ছাত্রীর গালে কামড় দিয়ে গুরুতর আহত করে দিয়েছেন নাজমুল হোসেন (২৩) নামে এক বখাটে।

আহত ওই ছাত্রীকে পাঁচবিবি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত নাজমুলকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। নাজমুল সাতবাড়িয়া এলাকার ভ্যানচালক আবুল কাশেমের ছেলে।

ওই ছাত্রীর মামা জানান, বোন-দুলাভাই ঢাকায় চাকরি করে। ভাগনি (ছাত্রী) তার দাদার বাড়িতে থেকে স্থানীয় একটি মাদরাসায় দশম শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। মাদরাসায় যাওয়া-আসার পথে দীর্ঘদিন ধরে নাজমুল তাকে বিভিন্নভাবে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। বিষয়টি তার (নাজমুলের) পরিবারকে বহুবার জানিয়েছি। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

তিনি জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে আমার ভাগনি বাড়ির গেটের পাশে টিউবওয়েলে যাওয়া মাত্রই নাজমুল তাকে টেনে নিয়ে যায় এবং ধর্ষণের চেষ্টা করে। এতে ব্যর্থ হয়ে তার বাম গালে কামড় দেয়। এ সময় তার চিৎকারে পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে যাওয়া মাত্রই নাজমুল পালিয়ে যায়।

আটক নাজমুলের এক আত্মীয় জানান, দীর্ঘদিন ধরে মেয়েটির সঙ্গে নাজমুলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এখন অন্য একটি ছেলের সঙ্গে মেয়েটির সম্পর্ক হওয়ায় নাজমুলের সঙ্গে সম্পর্ক করবে না বলে জানিয়ে দেয়ায় এ ঘটনা ঘটতে পারে।

এ ঘটনায় পাঁচবিবি থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বজলার রহমান জানান, শুক্রবার বিকেলে মেয়েটির বাবা নাজমুলকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here