শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান-এমপি বলেছেন, আমরা সরকার গঠনের পর শ্রমিক কল্যান ফাউন্ডেশনে ৬ লাখ টাকা পেয়েছি। আর এখন সেখানে ৪ শত কোটি টাকার ওপরে রয়েছে এবং সেখান থেকে আপনাদের ১৫ কোটি টাকার সহায়তা দেয়া হয়েছে।

আজ শনিবার বিকেলে বরিশাল নগর ভবনের সামনে আয়োজিত শ্রমিক কল্যান ফাউন্ডেশনের কল্যান তহবিল হতে আহত/অসুস্থ শ্রমিক ও শ্রমিকের পরিবারবর্গের চিকিৎসা এবং তাদের মেধাবী সন্তানদের উচ্চ শিার জন্য আর্থিক সহায়তার চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, বর্তমান সরকার শ্রমিকদের স্বার্থে সবসময় কাজ করছে। আমরা শ্রমিকের স্বার্থে অনেক আইন বাতিল করেছি, আবার যাতে মালিক পও তিগ্রস্থ না হয় সেদিকে খেয়াল রেখেও সামঞ্জস্য রাখার চেষ্টা করেছি। তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশনের যারা পরিচ্ছন্ন কর্মী, আজ যাদের জন্য পরিচ্ছন্ন এ শহর, তারা ভালো আছেন এটা শুনতেই ভালো লাগছে।

আজ মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর হস্তক্ষেপে আপনাদের বেতন সরাসরি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে চলে যায়, কারো কোন ফায়দা লুটার সুযোগ নাই। আবার বিনা দাবীতে আপনাদের বেতন বোনাস বেড়েছে। আপনারা সাদিকের পাশে থাকবেন, বঙ্গবন্ধুর রক্তের সাথে ওর শরীরের রক্তের মিল আছে, সাদিক বেইমানী করবে না এটা নিশ্চিত করে বলতে পারি। তিনি বলেন, শুধু একটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে আপনার সন্তানদের মাদক থেকে দূরে রাখতে হবে। কারন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে কাজ করে যাচ্ছেন তাতে আমাদের সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে। আর যুব সমাজকেই তো দেশটাকে এগিয়ে নিতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, আমি চাই জনগনের জন্য কাজ করতে। আর আমি যদি জনগনের জন্য করি, তাহলে তারাই ভোট দিবে এটা আমি বিশ্বাস করি। আমি আগামীতে কারো কাছে ভোট চাইবো না। তিনি বলেন, বরিশালে টেন্ডারবাজি, চাদাবাজি নাই, প্রধানমন্ত্রী শান্তিতে বিশ্বাস করেন, আমরাও শান্তি চাই। এসময় তিনি সাবেক ও প্রয়াত শওকত হোসেন হিরনকে সফল মেয়র হিসেবে আখ্যা দিয়ে বলেন, নগর ভবনের শ্রমিকদের কোন দাবী করার প্রয়োজন হবে না, আপনাদের ও আপনাদের পরিবারের সকলের দায়িত্ব আমার।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রীর সচিব মহিদুর রহমান, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইসরাইল হোসেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক শহিদুল ইসলাম, শ্রম পরিচালক (খুলনা) মিজানুর রহমান, জাতীয় শ্রমিক লীগ বরিশাল মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক পরিমল চন্দ্র দাসসহ শ্রম অধিদফতরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও উপস্থিত ছিলেন বক্তব্য রাখেন । পুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র গাজী নঈমুল হোসেন লিটু। বক্তব্য প্রদান শেষে বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন জেলার ৩৯ জন শ্রমিকের হাতে ১৯ লাখ ৭৫ হাজার টাকা চেক তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও সভাপতি। অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছার পাশাপাশি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ পিতলের নৌকা প্রদান করেন। এর আগে প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান নগর ভবনে গিয়ে বেশ কিছু সময় মেয়রের কার্যালয়ে অবস্থান করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here