মাদারীপুর, চট্টগ্রাম ও যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত অর্ধশতাধিক। এর মধ্যে মাদারীপুরের কলাবাড়িতে বাস খাদে পড়ে মারা গেছেন আটজন। আর চট্টগ্রামে বাস মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই শিশুসহ আট জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও সড়ক দুর্ঘটনায় যশোরে মারা গেছেন আরও দুইজন।

ফরিদপুরের চন্দ্রপাড়া পীরের বাড়ি থেকে যাত্রীদের নিয়ে ফিরছিলো মাদারীপুরের একটি বাস। দুপুর বারোটার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের মাদারীপুরের কলাবাড়ি এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে বাসটিকে ধাক্কা দেয় একটি ট্রাক। এ সময় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ব্রিজের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে তিনজনের মৃত্যু হয়।

হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যান আরো পাঁচজন। আহত হন অন্তত ৪০ জন। নিহত ও আহতদের প্রায় সবাই মাদারীপুরের বাসিন্দা বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। উদ্ধারকাজ এখনো চলছে। এ ঘটনায় ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

অপরদিকে বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে চট্টগ্রামের লোহাগড়ার চুনতী জাঙ্গালিয়া এলাকায় কক্সবাজারমুখী রিল্যাক্স পরিবহনের বাসের সঙ্গে চট্টগ্রাম অভিমুখী একটি মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ। ঘটনাস্থলে মাইক্রোবাসের আট যাত্রী নিহত হন। আহত হন কমপক্ষে ১০ জন। নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের চারজনসহ ছয়জনের পরিচয় পাওয়া গেছে।

আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে কিছুক্ষণ যান চলাচল বন্ধ থাকে। দুর্ঘটনাকবলিত গাড়িগুলো উদ্ধারের পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here