অবৈধ মাদক হেরোইন বিক্রি ও দখলে রাখার দায়ে আরো এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৬ এর বিচারক ড. শেখ গোলাম মাহবুব এই রায় দেন। সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম মো. সোহেল। তিনি পিরোজপুর জেলার কাউয়াখালী থানার কাউখালী দক্ষিণবাজার গ্রামের মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে। রায়ের সময় আসামিকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। রায় শেষে সাজা পরোয়ানাসহ তাকে কারাগারে ফেরত পাঠানো হয়।

গতকাল মঙ্গলবার একই আদালত মো. কামাল ওরফে ট্যাবলেট কামালকেও আরেকটি মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

আদালতে উপস্থিত আইনজীবী দেলোয়ার হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, মাদকের মামলায় এভাবে শাস্তি নিশ্চিত হলে ভয়াবহ মাদকের ছোবল থেকে দেশ রক্ষা পাবে। এই আইনজীবী আগের দিনও একই আদালতে উপস্থিত ছিলেন জানিয়ে তিনি বলেন, এই আদালত পর পর কয়েকটি মামলায় মাদক মামলার আসামিদেও সাজা দিলেন। উল্লেখ্য, এই আদালতের বিচারক কাজে যোগদানের পর চার মাসে ১৯ মামলায় ২২ আসামির প্রত্যেককে শাস্তি দিয়েছিলেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৭ জুন রাজধানীর কদমতলীর ঋষিপাড়ার রাস্তায় আসামি সোহেলকে আটক করে থানা পুলিশের একটি দল। তার কাছ থেকে ৮০০ পুরিয়া বা ৮০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় কদমতলী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) প্রদীপ কুমার কুন্ডু মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করেন।

একই থানার এসআই বিনয় কুমার রায় মামলা তদন্ত করে আসামি সোহেলের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। আদালত মোট পাঁচজন সাক্ষীর সাক্ষ্য নিয়ে রায় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এপিপি মঞ্জুর মাওলা চৌধুরী। আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহানাজ সাথী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here